২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১৯ মাঘ, ১৪২৯ | ১০ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

পেকুয়ায় ভিজিডি কার্ড উপকারভোগী তালিকা প্রনয়নে বঞ্চিত আওয়ামীলীগ উপেক্ষিত জাতীয় পার্টি!

shomoy
কক্সবাজারের পেকুয়ায় ভিজিডি উপকারভোগীর প্রণীত তালিকায় বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারী দল আওয়ামীলীগ বঞ্চিত আর সংসদের প্রধান বিরোধীদল জাতীয় পার্টির সুপারিশ প্রস্তাব উপেক্ষিত হওয়ার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে বর্তমান সংসদের সরকারদল ও বিরোধীদলের স্থানীয় নেতাকর্মীদের মাঝে জন্ম দিয়েছে চাঁপা ক্ষোভ ও অসন্তোষ। আর বিষয়টির দেখভাল করা ছাড়াই ভিজিডি পণ্য বিতরণ প্রক্রিয়া শুরু করার ঘটনায় সর্বত্র তোলপাড় চলছে। জানা যায়,  সম্প্রতি সরকারের অন্যতম জনহিতকর কর্মসূচী ভিজিডি উপকারভোগী নির্বাচন ও তার পণ্য বিতরণের নির্দেশনা দেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। উর্ধ্বতন মহলের এ আদেশের প্রেক্ষিতে পেকুয়ায়ও যথারীতি শুরু হয় তার কার্যক্রম। এসময় ভিজিডি কর্মসূচীর উপকারভোগী নির্বাচন ও নতুন করে তালিকা প্রণয়ন আরম্ভ করা হয়। উপজেলার ৭ইউনিয়নে ভিজিডি কর্মসূচীর উপকারভোগীর তালিকা প্রণয়ন, তার যাচাই বাছাই ও চূড়ান্ত নির্বাচন প্রক্রিয়া শেষে পণ্য বিতরণ আরম্ভ হলেও তাতে বর্তমান সংসদের সরকারী দল আওয়ামীলীগ ও বিরোধীদল জাতীয় পার্টির স্থানীয় নেতৃত্ব বা তৃণমুলের নীতি নির্ধারকদের বিষয়টি অবহিত করা ছাড়াই শুধুমাত্র চেয়ারম্যান মেম্বার ও গুটিকয়েক অসাধু চক্রের নিরব ধান্ধাবাজি, স্বজনপ্রীতি, দলবাজি, স্টান্ডবাজি ছাড়াও চরম অনিয়ম দূর্নীতির আশ্রয় নেয়া হয়েছে বলে উভয়দল আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে অভিযোগ তোলা হয়েছে। অভিযোগে বলা হয়, শুধু তৃণমূল নয় ইউনিয়ন ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সুপারিশ প্রস্তাবনা নেয়াতো দূরে থাকা ভিজিডি উপকারভোগীদের তালিকা প্রণয়ন থেকে শুরু করে তার যাচাই বাছাই সহ কোথাও তাদের নূন্যতম সৌজন্যতাও দেখাননি সংশ্লিষ্টরা। সম্প্রতি ইউনিয়ন পর্যায়ে ভিজিডি সামগ্রী বিতরণ প্রক্রিয়া শুরু করলে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা খোঁজ খবর জানতে প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদ পরিদর্শনে যান। পেকুয়া সদর ইউনিয়ন পরিষদে ভিজিডি সামগ্রী বিতরণকালে সেখানে উপস্থিত পেকুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক এম.দিদারুল করিম জানান, ভিজিডি তালিকা প্রণয়ন, যাচাই বাছাই সহ প্রতিটি প্রক্রিয়ায় কক্সবাজার-১ (পেকুয়া-চকরিয়া)র’ মাননীয় সংসদ সদস্য জাপা নেতা হাজি¦ মুহাম্মদ ইলিয়াছ এম.পি’র বিশেষ নির্দেশনা থাকলেও তার প্রতি দেখানো হযেছে চরম উপেক্ষা আর অবজ্ঞা। শুধু তাই নয়। উপরন্তু মাননীয় সংসদ সদস্যের কোটার বাচাইয়ে সু’কৌশলে মাত্র ১জনকে তালিকায় অর্ন্তভুক্তির মাধ্যমে বর্তমান সংসদের প্রধান বিরোধীদল জাতীয় পার্টি ও স্থানীয় মাননীয় সংসদ সদস্যের প্রতি করা হয়েছে উপহাস। বর্তমান সংসদের প্রধান বিরোধীদল ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের পক্ষ থেকে উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নে আমরা ৪০জনের তালিকা জমা দিলেও সেখানকার ইউপি চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা নুরুল হোসাইন মাত্র ১০জনকে অন্তর্ভুক্তে রাজী হন। শিলখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি উপজেলা নির্বাচনে আ’লীগের একক মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ওয়াহিদুর রহমান ওয়ারেচী ও সাধারণ সম্পাদক ডা. মোঃ বেলাল উদ্দিন আহমদ অভিযোগ করে বলেন, শিলখালীতে ভিজিডি উপকারভোগী তালিকা প্রণয়ন, যাচাই বাছাই তার অনুমোদন সহ সকল প্রক্রিয়া ও বিতরণকালেও শিলখালী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের প্রতি নূন্যতম সৌজন্যতাও দেখায়নি ওই ইউনিয়ন পরিষদ সংশ্লিষ্টরা। ভিজিডি পণ্য বিতরণকালে রাজাখালী ইউনিয়ন পরিষদ পরিদর্শনকালে স্থানীয় সাংবাদিকদের উপস্থিত লোকজন অভিযোগ করে বলেন, তাদের এলাকায় যারা চেয়ারম্যান-মেম্বারদের ২হইতে ৩হাজার টাকা করে উৎকোচ বা চেয়ারম্যান-মেম্বারদের ১টি করে নতুন চেয়ার উপহার দিতে পেরেছেন তাদেরকেই দেয়া হয়েছে ভিজিডি’র উপকারভোগী কার্ড। মগনামায় উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউপি চেয়ারম্যানের পছন্দ অপছন্দেই দেওয়া হয়েছে ভিজিডি উপকারভোগী কার্ড এমন অভিযোগ আওযামীলীগ ও জাতীয় পার্টির স্থানীয় নেতাকর্মীদের। উজানটিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এম. তোফাজ্জল করিম ও সাধারণ সম্পাদক শাহজামাল এমইউপি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, শুধু ভিজিডি উপকারভোগী তালিকা প্রনয়ন নয় প্রকল্পটির সকল কাজে তাদের প্রস্তাব সুপারিশ গ্রহণতো দূরে থাক মতামত নেয়ার সৌজন্যতাও দেখানো হয়নি। টইটং ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মুন্সি সরোয়ার কামাল চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম চৌধুরীও করেন একই অভিযোগ। তবে, বারবাকিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আবুল হোসেন শামা ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল হোসাইন তাদের গ্রামেও ভিজিডি কমৃসূচীর তালিকা প্রণয়ন থেকে শুরু করে বিতরণ সময়েও সরকারদল হিসাবে পরিচিত আ’লীগের পক্ষ থেকে নেয়া হয়নি কোন ধরনের সুপারিশ ও মতামত। এ বিষয়ে পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আ.ক.ম সাহাবউদ্দিন ফরায়েজী ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবুল কাসেমের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, শুধু ভিজিডি তালিকা প্রনয়ন বিতরণ নয় সরকারী কর্মসূচীর বাস্তবায়নেই কোন ধরনের স্বচ্ছতা, জবাবদিহীতা বা যাচাই বাছাইয়ে তাদের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বঞ্চিত রাখা হচ্ছে। এমনকি কিছু কিছু ক্ষেত্রে সুপারিশ প্রস্তাব দাবী তোলা হলেও তার প্রতিও দেখানো হয় চরম অবজ্ঞা। এসব বিষয় নিয়ে বারবার ইউএনও থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্টদের দ্বারস্থ্য হয়েও কোন প্রতিকার পাইনি।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।