৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ২০ মাঘ, ১৪২৯ | ১১ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

ডেটলাইন মেলবোর্ন: আরেকটি ইতিহাসের প্রতীক্ষা

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে বৃহস্পতিবার এক অন্য রকম দিন। এই দিনটি কেবলই নিজেদের ছাড়িয়ে যাওয়ার। ইতিহাসের আরো উচ্চতায় নিজেদের পৌঁছে দেয়ার। নেই কিছুই হারানোর।
ইতোমধ্যে ক্রিকেটের জনক ইংল্যান্ডকে হারিয়ে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে নতুন ইতিহাস লিখেছে টাইগাররা। তাই এ মুহূর্তে ক্রিকেট বিশ্বে সবচেয়ে উজ্জ্বীবিত জাতির নাম বাংলাদেশ।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৯টায় নতুন ইতিহাস লেখার অদম্য স্পৃহা নিয়েই মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে নামবে বাংলাদেশ। এই প্রথম বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টে বড় ম্যাচ খেলতে যাওয়া টাইগারদের উত্তেজনাও অন্যরকম।

দল বেঁধে খেলা দেখার জন্য চলছে নানা আয়োজন। পাড়া-মহল্লায় চলছে জায়ান্ট-স্ক্রিনে খেলা দেখার আয়োজন। আর মাঠের লড়াইয়ের ফলাফল যা-ই হোক না কেন, বিজয় প্রত্যাশী জাতি যে বিজয় উদ্‌যাপনের আয়োজন করে রেখেছে তা বলাই বাহুল্য।
তবে শেষ চার নিশ্চিতের এই লড়াইয়ে বাংলাদেশের কঠিন প্রতিপক্ষ বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত। পরিসংখ্যানের হিসেবে ভারত ফেভারিট এটা অস্বীকার করছে না বাংলাদেশ। এ আসরের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলা দলগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের র‌্যাঙ্কিংও সবার নিচে।

অবশ্য মাঠের লড়াইয়ে পরিসংখ্যান যে সব সময় কাজে দেয় না তা সবার জানা। আর দলটি যদি মাশরাফি বিন মর্তুজার নেতৃত্বে ‘জায়ান্ট কিলার’ বাংলাদেশ হয় তা হলে তো কথাই নেই। তাই তো ক্রিক-ইনফোর শিরোনাম- ‘জায়ান্ট’ ভূ-পাতিত করার লক্ষ্যে নিশানা তাক বাংলাদেশের।

মাঠের লড়াইয়ের আগে বাংলাদেশ ও ভারতের সমর্থকদের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইতোমধ্যে লড়াই শুরু হয়ে গেছে। পেপসির আপত্তিকর মওকা বিজ্ঞাপন দিয়ে এই লড়াইয়ের সূচনা করেন ভারতীয় সমর্থকরাই। তবে তাদের অপমান না করলেও জবাব দিতে দেরি করেননি টাইগার সমর্থকরা।

আর মাঠের লড়াইয়ে বাংলাদেশ যে কম যাবে না তার কারণ প্রেরণার বাতিঘর মাশরাফি। তার মাঠে থাকা মানে প্রতিটি মুহূর্তে লড়াইয়ে থাকা। এছাড়া মাশরাফির নাম শুনলে ভারতীয়দের কলিজা কেঁপে ওঠে, জেগে ওঠে পুরনো ক্ষতের ব্যথা।

ভারতের রোহিত-ধাওয়ান-কোহলির পর রায়না-জাদেজা-ধোনিকে নিয়ে গড়া ব্যাটিং লাইনআপটা শক্তিশালীই বটে। তবে এক্ষেত্রে বাংলাদেশের তামিম-ইমরুল-সৌম্যের পর সাকিব-মাহমুদুল্লাহ-মুশফিককে নিয়ে গড়া ব্যাটিং লাইনকে কে সমীহ করবে না?

বোলিংয়ে গতির লড়াইয়ে সামি-যাদব-মোহিতের বিপরীতে রয়েছেন মাশরাফি-রুবেল-তাসকিন। স্পিনে অশ্বিন-জাদেজার বিপরীতে লড়বেন সাকিব-মাহমুদুল্লাহ। বাড়তি হয়ে আসতে পারেন আরাফাত সানি।

কালকের লড়াইয়ে সবার নজর থাকবে তামিম ইকবালের ওপর। ডাউন দ্য উইকেটে আক্রমণাত্মক তামিককে খুঁজবেন অনেকে। যদিও তামিম এবার ব্যর্থতার কাঁটায় বিদ্ধ। হয়তো ভারতের বিরুদ্ধেই সেরাটা জমিয়ে রেখেছেন তিনি।

এছাড়া বিশ্বসেরা অলারাউন্ডারের খাতায় নাম লেখানো সাকিব আল হাসান, ‘সাইলেন্ট কিলার’ মুশফিকুর রহিম আর আবার বিশ্বকাপের এবারের আসরে সেরা পাঁচ ব্যাটসম্যানের একজন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে পারলেই নতুন ইতিহাস গড়া তেমন কঠিন হবে না।

সবচেয়ে বড় কথা বাংলাদেশের ১১ যোদ্ধা যখন লড়েন, তখন মূলতঃ লড়েন ১৬ কোটি মানুষ। টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া আর রূপসা থেকে পাথুরিয়া সর্বত্রই তখন একই গর্জন- বাংলাদেশ, বাংলাদেশ। ক্রিকেটাররাও সামর্থ্যের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে সে আবেগের প্রতি সম্মান দেখান।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।