২২ মে, ২০২৪ | ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ১৩ জিলকদ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার প্রথম নির্বাচনে সহিংসতায় যুবক খুন; বসতবাড়ি ভাংচুরের অভিযোগ    ●  এভারকেয়ার হসপিটালের শিশু হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. তাহেরা নাজরীন এখন কক্সবাজারে   ●  কালেক্টরেট চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতির সভাপতি আব্দুল হক, সম্পাদক নাজমুল   ●  ক্যাম্পের বাইরে সেমিনারে অংশ নিয়ে আটক ৩২ রোহিঙ্গা   ●  চেয়ারম্যান প্রার্থী সামসুল আলমের অভিযোগ;  ‘আমার কর্মীদের হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে’   ●  নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সবকিছু কঠোর থাকবে, অনিয়ম হলেই ৯৯৯ অভিযোগ করা যাবে   ●  উখিয়া -টেকনাফে শাসরুদ্ধকর অভিযানঃ  জি থ্রি রাইফেল, শুটারগান ও গুলিসহ গ্রেপ্তার ৫   ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হেড মাঝিকে  তুলে নিয়ে   গুলি করে হত্যা   ●  যুগান্তর কক্সবাজার প্রতিনিধি জসিমের পিতৃবিয়োগ   ●  জোয়ারিয়ানালায় কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় আহত রামু কলেজের অফিস সহায়ক

২২২ রানে অলআউট পাকিস্তান

207853 দু’দফা বৃষ্টির পর খেলা শুরুর পর আর ঠিকভাবে দাঁড়াতেই পারেনি পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানরা। ২২ রানে থাকা আফ্রিদি ফিরলেন স্টেইনের বলে। ওয়াহাব রিয়াজ এসেই ফিরে গেলেন প্রথম বলে এলবি হয়ে। সর্বশেষ প্রতিরোধ গড়ে উইকেটে দাঁড়িয়ে থাকা মিসবাহ-উল হকের প্রতিরোধও ভেঙে পড়লো স্টেইনের সামনে। ৫৬ রান করার পর স্টেইনের বলে মর্কেলের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনিও।

শেষ পর্যন্ত ৪৬.৪ ওভারে ২২২ রানেই অলআউট হয়ে গেলো পাকিস্তান। ইনিংসের আরও বাকি ছিল ৪ বল। জিততে হলে ৪৭ ওভারে দক্ষিণ আফ্রিকাকে করতে হবে ২২৩ রান। ডেল স্টেইন ৩০ রান দিয়ে নেন ৩ উইকেট। ২টি করে উইকেট নেন কাইল অ্যাবট আর মরনে মর্কেল। ১টি নেন ইমরান তাহির।

মুষলধারে বৃষ্টি হলো প্রায় ১০ মিনিট। বৃষ্টি বন্ধ হতে না হতেই উপযোগি করে নেওয়া হলো মাঠ। আবারও শুরু পাকিস্তান দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ। এরপর খেলা হলো মাত্র ৩.১ ওভার। কিন্তু আবারও খেলা বন্ধ। আবারও বৃষ্টি। ২০ মিনিট পর আবারও খেলা শুরু। খেলা শুরুর সাথে সাথেই আফ্রিদির উইকেট হারালো পাকিস্তান।

শেষ পর্যন্ত ম্যাচটির ভাগ্য গড়ালো কার্টেল ওভারে। দু’দলের জন্যই নির্ধরাণ করা হলো ৪৭ ওভার করে। দু’জন মাত্র বোলার ১০ ওভার করে বল করতে পারবে। বাকিরা করবেন ৯ ওভার করে বল। আর মধ্যাহ্ন বিরতি দেওয়া হবে মাত্র ১০ মিনিটের।

আগেই ধারণা করা হয়েছিল বৃষ্টিতে বাধা সৃষ্টি হতে পারে পাকিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচে। এমনকি বলা হচ্ছিল বৃষ্টি আশির্বাদ হয়েও দেখা দিতে পারে পাকিস্তানের সামনে। অকল্যান্ডে আজ শেষ পর্যন্ত সেটাই ঘটার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। প্রথমে খেলার ৩৭ ওভার শেষ হতে না হতেই মুষলধারে বৃষ্টি আসলো। এরপর ৪১.১ ওভারে আবার এলো বৃষ্টি।

তার আগে অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ভালোই শুরু করেছে পাকিস্তান। অন্য যে কোন ম্যাচের চেয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আজ পাকিস্তানকে মনে হচ্ছে বেশ গোছালো এবং আত্মবিশ্বাসী একটি দল।

207817আহমেদ শেহজাদের সঙ্গে পাকিস্তানের ইনিংস ওপেন করতে নামেন সরফরাজ আহমেদ। দু’জনের আত্মবিশ্বাসী শুরট দেখেই মনে হচ্ছিল আজ দিনটা পাকিস্তানেরও হতে পারে। তবে নবম ওভারে কাইল অ্যাবটের বলে ডেল স্টেইনের অসাধারণ এক ক্যাচের শিকার হয়ে ফিরে যান ওপেনার আহমেদ শেহজাদ।

ওয়ানডাউনে ব্যাট করতে নামেন ইউনিস খান। প্রথম দুই ম্যাচে ব্যার্থতার কারনে দল থেকে বাদ পড়ার পর পুনরায় দলে ফেরার পর ইউনিসকেও মনে হচ্ছে বেশ আত্মবিশ্বাসী একজন ব্যাটসম্যান।

তবে তাকে এক পাশে রেখে অপর পাশে বেশ মারমুখী ভুমিকায় অবতীর্ণ হন সরফরাজ আহমেদ। ডুমিনিকে এক ওভারে পর পর দুবার ছক্কাসহ তিনবার ওভার বাউন্ডারি মেরে পাকিস্তানের রানের চাকা অসাধারণভাবে বাড়িয়ে তোলেন।

কিন্তু সুখের সময় বেশিক্ষণ টেনে না মনে হয়। এ কারণেই ১৭তম ওভারে এসে ফিল্ডারের হাতে বল রেখে দ্বিতীয় রান নিতে যান সরফরাজ। কিন্তু ডেভিড মিলার আর কুইন্টন ডি ককের চেষ্টায় শেষ পর্যন্ত রান আউট হয়েই ফিরে যান তিনি। ততক্ষণে তার নামের পাশে ৪৯ বলে ৪৯ রান। ৫টি বাউন্ডারি আর ৩টি ছক্কায় সাজানো তার ইনিংস।

দলীয় ১৩২ রানে ফিরে যান ইউনিস খানও। আউট হওয়ার আগে ৪৪ বলে খেলেন ৩৭ রানের এক ইনিংস। অকেশনাল বোলার ডি ভিলিয়ার্সের একটি ইনসুইঙ্গার রক্ষণাত্মক ভঙ্গিমায় খেলতে গিয়ে ক্যাচ তুলে দেন শট কভার অঞ্চলে। ক্যাচ ধরেন রিলে রুশো।

৩২তম ওভারের শেষ বলে আউট হন শোয়েব মাকসুদ কাইল অ্যাবটের বলে তিনি ক্যাচ তুলে দেন পয়েন্ট দাঁড়ানো রিলে রুশোর হাতে। ১৬ বলে ৮ রান করে ফেরেন তিনি।

৩৭তম ওভারের শেষ বলে মর্কেলের বলে মিডউইকেটে খেলেন উমর আকমল। তার জোরে মারা শটটি অসাধারণ দক্ষতায় তালুবন্দী করে নেন এবি ডি ভিলিয়ার্স।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।