৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ২০ মাঘ, ১৪২৯ | ১১ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

সিটি নির্বাচনের সুবাতাস: হরতাল-অবরোধে সাময়িক বিরতি!

ঢাকা ও চট্টগ্রামের তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে এই দুই নগরীতে হরতাল- অবরোধ তুলে নিতে পারে বিএনপির নেতৃত্বে ২০ দল। এই সিদ্ধান্ত জানাতে হয়তো আর কয়েকদিন সময় নেবে বিএনপি। বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব এবং সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন প্রিয়.কমকে জানান,‘ সিটি নির্বাচনের ব্যাপারে আমরা ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নিচ্ছি, তাই আন্দোলনের কৌশলেও পরিবর্তন আসবে।’ আর বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আহমেদ অ্যাডভোকেট আযম খান প্রিয়.কমকে বলেন,‘ নির্বাচনের জন্য একটি নির্দিষ্ট মেয়াদে ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরীতে হরতাল-অবরোধ পুরোপুরি প্রত্যাহার করা হতে পারে।’

ব্যারিস্টার মাহবুব বলেন,‘ নির্বাচন হলে বিএনপি জেতে। তাই সামনে তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে খোলা মাঠে গোল দিতে দিব কেন? আমাকে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব বলেছেন,‘নির্বাচনের জন্য সবাইকে প্রস্তুত করতে। নির্বাচনের জন্য আমারা প্রস্তুত।’ তিনি আরো বলেন,‘দেশের সর্বশেষ নির্বাচনেও বিএনপি জয়ী হয়েছে। আর সেই নির্বাচনে আমি পরপর তৃতীয়বারের মত সুপ্রিমকোর্ট বারের সাধারণ সম্পাদক হয়েছি।’ তাঁর মতে, ‘দীর্ঘ আন্দোলনে নেতা-কর্মীরা কোনঠাসা, খরচও করতে চায় না। নির্বাচনে তারা চাঙ্গা হবেন। হবেন হাতখোলা।’

আগামী ২৯ মার্চ তিন সিটি কর্পোরেশনে মনোয়ন জমা দেয়ার শেষ দিন। বিএনপি চেয়ারপারনের উপদেষ্টা আহমেদ আযম খান প্রিয়.কমকে জানান,‘ ম্যাডাম ২০ দলের শরীক নেতাদের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। হয়তো দু’একদিনের মধ্যে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশ নেয়া ব্যাপারে। প্রার্থী বাছাই , মনোয়নপত্র দাখিল এসব কাজে পর্যাপ্ত সময় রেখেই ঘোষণা আসবে।’ তিনি বলেন,‘ সব মহল থেকেই নির্বাচনে অংশ নেয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক মতামত পাওয়া গেছে। এখন ম্যাডামের চুড়ান্ত সিদ্ধান্তের অপেক্ষায়।’

বিএনপি’র নেতৃত্বে ২০ দল গত ৬ জানুয়ারি থেকে নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবীতে টানা অবরোধ-হরতাল পালন করে আসছে। যদি সিটি নির্বাচনে অংশ নেয় তাহলে আন্দোলনের কী হবে? এমন প্রশ্নের জবাবে আহমেদ আযম খান বলেন,‘ আন্দোলন চলবে, তবে কৌশলগত পরিবর্তন আসবে।’ তিনি বলেন,‘ নির্বাচনের জন্য একটি নির্দিষ্ট মেয়াদে ঢাকা ও চট্টগ্রাম মহানগরীতে হরতাল-অবরোধ পুরোপুরি প্রত্যাহার করা হতে পারে। দেয়া হতে পারে গণমিছিলসহ সভা সমাবেশের কর্মসূচি। আর ঢাকা ও চট্টগ্রামের বাইরেও হয়তো আন্দোলন শিথিল করে নেতা-কর্মীরা অংশ নিতে পারে এমন কর্মসূচি দেয়া হবে।’

তিনি আরো বলেন,‘ বিএনপি আন্দোলনের অংশ হিসেবেই সিটি নির্বাচনে অংশ নেবে।’ ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন,‘ আন্দোলনতো আছে, থাকবে। নির্বাচনের জন্য ঢাকা ও চট্টগ্রামে আন্দোলনের কৌশল পরিবর্তন হবে। নির্বাচনের জন্য যেভাবে আন্দোলন করলে সুবিধা হয় সেভাবেই কর্মসূচি দেয়া হবে।’

অন্যদিকে ২০ দলীয় জোটের শরীক ইসলামী ঐক্যজোটের প্রধান আব্দুল লতিফ নেজামী প্রিয়.কমকে বলেন,‘ আজকালের মধ্যে সিটি নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সঙ্গে কথা হবে। জোটের মধ্যে নির্বাচনের ব্যাপারে ইতিবাচক মতামত আছে। নির্বাচনে অংশ নিলে নেতা-কর্মীরা চাঙ্গা থাকে।’ তিনি বলেন,‘ দেশের প্রায় কোন সিটি কর্পোরেশনেইতো বলতে গেলে সরকারের অবস্থান নেই। তাই ঢাকা ও চট্টগ্রামে সরকার নানা কারসাজি করার চেষ্ট করলেও সহজে পারবেনা।’ আর আন্দোলনের ব্যাপারে তাঁর মত হল,‘ আন্দোলনতো তেমন হচ্ছে না। তাই নির্বাচনের মাধ্যমে নেতা-কর্মীদের চাঙ্গা করাই ভাল।’

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।