৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ২৬ মাঘ, ১৪২৯ | ১৭ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  চট্টগ্রামের বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ, এমপি মোসলেম উদ্দীনের মৃত্যুতে কক্সবাজার জেলা আ’লীগের শোক   ●  স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের সঙ্গে একান্তে সাক্ষাত এমপি জাফর আলমের   ●  কক্সবাজার সদর হাসপাতালে হয়রানি ও হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন   ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম

সাগরপাড়ের হোটেল কল্লোলের নকশা ভাংচুর নিয়ে উত্তেজনা

বিশেষ প্রতিবেদক:
চুক্তিপত্রের বাইরে গিয়ে কক্সবাজার সাগরপাড়ের হোটেল কল্লোলের নকশা পরিবর্তন, পরিবর্ধন ও ভাংচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। হোটেল কল্লোল মালিক পক্ষের বাঁধাকে উপেক্ষা করে গত দুইদিন ধরে অর্ধশত শ্রমিক নিয়ে ভাড়াটিয়া এমডি ইমরান হাসান নির্মাণ কাজ চালিয়ে যাওয়া নিয়ে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
সাগরপাড়ের হোটেল কল্লোল হোটেল মালিক পক্ষের অংশীদার হোসনে আরা আরজু  বলেন, কল্লোল হোটেল ভাড়া চুক্তিপত্রে উল্লেখ ছিলো হোটেল মূল নকশায় কোন কিছু নির্মাণ করতে হলে মালিক পক্ষের অনুমতি নিতে হবে। মালিক পক্ষের সাথে মিটিং এ বসতে হবে। কিন্তু আজ ২ দিন পর্যন্ত মূল নকশায় তথা হোটেলে স্থাপনা ভেঙে নতুন করে সাজাতে ব্যস্ত ভাড়াটিয়া ইমরান হাসান।
এব্যাপারে মালিক পক্ষের অংশীদার হোসনে আরা আরজু বলেন, গত ২ দিন যাবত হোটেলের নকশা ভাংচুর করে পরিবর্তন কাজ চালিয়ে যায়। আমি হোটেলে গিয়ে স্থাপনা নির্মাণ বন্ধ করে আমাদের সাথে (মালিক পক্ষ) মিটিং এ বসতে বলি। তিনি আরও বলেন, উভয় পক্ষ আলোচনা ব্যতিত স্থাপনা নির্মাণ কাজও বন্ধ করতে বলি। কিন্তু  ভাড়াটিয়া পক্ষের ইমরান হাসান আমরা মালিক পক্ষের কোন কথা কর্ণপাত করছে না। সমানতালে স্থাপনা নির্মাণ  কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।
হোসনে আরা আরজু আরও বলেন, হোটেল ভাড়া চুক্তিেত্রে স্পষ্ট উল্লেখ আছে, হোটেল নকশায় পরিবর্তন ও পরিবর্ধন করতে হলে অথবা কোন সংস্কার কাজ করতে হলে মালিক পক্ষের অনুমতি নিতে হবে। কিন্তু তারা সেই চুক্তি পত্রের নিয়ম ভঙ্গ করেছেন। মালিক পক্ষের মূল স্থাপনা ভেঙ্গে নির্মাণ কাজ করে আইন ভঙ্গ করেছেন। গত ২ দিন যাবত হোটেলে গিয়ে কাজ বন্ধ করার জন্য বারবার অনুরোধ করলেও তারা এ ব্যাপারে কোন কথা কর্ণপাত করছে না।
তিনি বলেন, আমরা হোটেল অংশীদার সকলের সিদ্ধান্ত মোতাবেক এব্যাপারে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব।
এব্যাপারে হোটেল ভাড়াটিয়া এমডি  ইমরান হাসানের বক্তব্য নেওয়ার জন্য চেস্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।