১৭ এপ্রিল, ২০২৪ | ৪ বৈশাখ, ১৪৩১ | ৭ শাওয়াল, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  ‘বনকর্মীদের শোকের মাঝেও স্বস্তি, হত্যার ‘পরিকল্পনাকারি কামালসহ গ্রেপ্তার আরও ২   ●  উখিয়া নাগরিক পরিষদ এর ঈদ পুনর্মিলনী ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত   ●  আদালতে ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার দায়স্বীকার সেই ডাম্পার চালক বাপ্পির   ●  ‘অভিযানে ক্ষুব্ধ, ফরেস্টার সাজ্জাদকে পূর্বপরিকল্পনায় হত্যা করা হয়’   ●  ফাঁসিয়াখালীতে পৃথক অভিযানে জবর দখল উচ্ছেদ, বালিবাহী ডাম্পার জব্দ   ●  অসহায়দের পাশে ‘রাবেয়া আলী ফাউন্ডেশন’   ●  ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার মূল ঘাতক সেই বাপ্পী পুলিশের জালে   ●  ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন অব কক্সবাজার,ক্র্যাকের সভাপতি জসিম, সম্পাদক নিহাদ   ●  নতুন জামাতে রঙিন ১০০ শিশুর মুখ   ●  মহেশখালী উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার পাশা চৌধুরীর মৃত্যুতে জেলা আ’লীগের শোক

রোহিঙ্গা যুবক হত্যা মামলার ৪ আসামী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিনিধি:

রোহিঙ্গা যুবক সৈয়দ হোসেন হত্যা মামলার ৪ আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে ৮ এপিবিএন এর সদস্যরা। শুক্রবার (২১ অক্টোবর) ভোর রাতে ক্যাম্প-১৩ ও ১৯ এ পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। একই সাথে অন্য আসামীদের আটক করতে ব্লক রেইড অব্যাহত রেখেছে পুলিশ।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ক্যাম্প-১৩ এর ডি/২ ব্লকের বাসিন্দা মকবুল আহাম্মদের ছেলে সৈয়দ হোসেন প্রকাশ জাহিদ হোসেন (৩৫), ক্যাম্প-১৫ এর এইচ/৩ ব্লকের মৃত ইলিয়াসের ছেলে মোহাম্মদ ইয়াছিন (৩০), ক্যাম্প-১৯ এর এ/১৮ ব্লকের মৃত আবু বক্করের ছেলে নুর আলম (৩২) এবং ক্যাম্প-১৩ এর এফ/৫ ব্লকের মেহাম্মদ ইসহাকের ছেলে মোহাম্মদ গণি (২৫)।
৮ এপিবিএন এর সহকারী পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মোঃ ফারুক আহমেদ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, গত ১৮ অক্টোবর রাতে ১৯ নং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি দোকানের সামনে ২৮/৩০ জনের একটি দুষ্কৃতিকারী দল সৈয়দ হোসেন (২৩)কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহত সৈয়দ হোসেনের ভাই বাদী হয়ে উখিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৫৮।
নিহত সৈয়দ হোসেন ক্যাম্প-১৯ এর এ/১০ ব্লকের মৃত জমিল হোসেনের ছেলে।
এই হত্যাকান্ডের পর থেকে অপরাধীদের সনাক্ত করতে ৮ এপিবিএন কাজ করে যাচ্ছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ জানতে পারে সৈয়দ হোসেন হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত কয়েকজন ক্যাম্প-১৩ ও ১৯ এ অবস্থান করছে। সুনির্দ্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে ভোরে অভিযান পরিচালনা করে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতদের উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।