২৩ মে, ২০২৪ | ৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ১৪ জিলকদ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সাঁড়াশি অভিযানে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলিসহ আরসা সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার    ●  নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার প্রথম নির্বাচনে সহিংসতায় যুবক খুন; বসতবাড়ি ভাংচুরের অভিযোগ    ●  এভারকেয়ার হসপিটালের শিশু হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. তাহেরা নাজরীন এখন কক্সবাজারে   ●  কালেক্টরেট চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতির সভাপতি আব্দুল হক, সম্পাদক নাজমুল   ●  ক্যাম্পের বাইরে সেমিনারে অংশ নিয়ে আটক ৩২ রোহিঙ্গা   ●  চেয়ারম্যান প্রার্থী সামসুল আলমের অভিযোগ;  ‘আমার কর্মীদের হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে’   ●  নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সবকিছু কঠোর থাকবে, অনিয়ম হলেই ৯৯৯ অভিযোগ করা যাবে   ●  উখিয়া -টেকনাফে শাসরুদ্ধকর অভিযানঃ  জি থ্রি রাইফেল, শুটারগান ও গুলিসহ গ্রেপ্তার ৫   ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হেড মাঝিকে  তুলে নিয়ে   গুলি করে হত্যা   ●  যুগান্তর কক্সবাজার প্রতিনিধি জসিমের পিতৃবিয়োগ

ওয়ার্ল্ড ভিশন আই ডাবলিউ আর প্রকল্পের তথ্য

রামুতে নিরাপদ পানি ও উন্নত স্যানিটেশন  সুবিধা পেয়েছে ৫০ হাজার মানুষ  

নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজারের রামুতে নিরাপদ পানি ও উন্নত স্যানিটেশন সুবিধা পেয়েছে ৫০ হাজার মানুষ। গতকাল মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) উপজেলা পরিষদের বাঁকখালী কনফারেন্স হলরুমে আয়োজিত ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ আই ডাবলিউ আর প্রকল্পের বাৎসরিক অগ্রগতি অবহিতকরন ও শিখন সভায় এ তথ্য জানানো হয়।
রামু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ( ইউএনও) মো. রাশেদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন রামু উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান (ভারপ্রাপ্ত) আফসানা জেসমিন পপি।
সভায় জানানো হয়, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের আওতায় আই ডাবলিউ আর প্রকল্প ২০২৩ সালের ৩১ মার্চ কার্যক্রম শুরু করে। প্রকল্পের আওতায় গত ১ বছরে ৪ টি ইউনিয়নের ৩০ টি গ্রামে মোট ৪৮ টি পানির উৎস ( ডিপ টিউবয়েল-২১ টি শ্যালো টিউবয়েল-২০ টি ও ডিপ টিউবয়েল উইথ সাব মার্সেবল পাম্প-৬ টি) স্থাপন করা হয়। যেখানে সরাসরি ৮৪৭ টি পরিবারের ৪০৫১ জন নিরাপদ পানির সুবিধা পাচ্ছে। এছারা ১৬ টি কমিউনিটি টয়লেট স্থাপনের মাধ্যমে ১৪৮ টি পরিবারের ৭১৬ জন লোক উন্নত স্যানিটেশনের সুবিধা পাচ্ছেন।
২০ টি হাই স্কুল ও মাদ্রাসায় ওয়াস কার্যক্রম বাস্থবায়ন করছেন। এই ১ বছরে ৪ টি ওয়াস ব্লক, ২ টি লেট্রিন রিনোভেসন, ৪ টি হ্যান্ড ওয়াসিং ষ্টেশন স্থাপন, ২ টি ডিপটিউবয়েল স্থাপন করা হয়। যেখানে মোট ১১ টি প্রতিষ্টানের ৫২৩৯ জন ছাত্র-ছাত্রী সরাসরি নিরাপদ পানি ও উন্নত স্যানিটেশনের সুবিধা পাচ্ছেন। গত ১ বছরে স্বাস্থবিধি ও আচরনের উন্নয়নের জন্য স্বাস্থ্য সম্পকিত জন সচেতনতামূলক সেশন, পোষ্টার লিফলেট বিতরণ, দিবস উৎযাপন, বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের সহিত এডভোকেসি মিটিং ইত্যাদি করা হয়। যেখানে গত এক বছরে সর্বমোট ৪৪ হাজার ৯২১ জন মানুষ প্রত্যক্ষভাবে এই প্রকল্পের সাথে যুক্ত হয়েছে।
সভায় বিশেষ অতিথ ছিলেন ডিপিএইচই এর সহকারী প্রকৌশলী ক্যছাই মং চাক, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম চৌধুরী, ওয়ার্ল্ড ভিশনের কো-অর্ডিনেটর (জাপান) মিছিকো ও প্রজেক্ট ম্যানেজার ইউজিন লী।
এসময় বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীর প্রতিনিধি, ধর্মীয় নেতা, ও উপকারভোগী সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।