১৪ এপ্রিল, ২০২৪ | ১ বৈশাখ, ১৪৩০ | ৪ শাওয়াল, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  আদালতে ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার দায়স্বীকার সেই ডাম্পার চালক বাপ্পির   ●  ‘অভিযানে ক্ষুব্ধ, ফরেস্টার সাজ্জাদকে পূর্বপরিকল্পনায় হত্যা করা হয়’   ●  ফাঁসিয়াখালীতে পৃথক অভিযানে জবর দখল উচ্ছেদ, বালিবাহী ডাম্পার জব্দ   ●  অসহায়দের পাশে ‘রাবেয়া আলী ফাউন্ডেশন’   ●  ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার মূল ঘাতক সেই বাপ্পী পুলিশের জালে   ●  ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন অব কক্সবাজার,ক্র্যাকের সভাপতি জসিম, সম্পাদক নিহাদ   ●  নতুন জামাতে রঙিন ১০০ শিশুর মুখ   ●  মহেশখালী উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার পাশা চৌধুরীর মৃত্যুতে জেলা আ’লীগের শোক   ●  পাহাড়ে শান্তি ফেরাতে যৌথ অভিযান   ●  নিরাপদ পেকুয়া গড়তে দলমত নির্বিশেষে সকলকে এক হতে হবে, ড. সজীব

মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামি লিয়াকতের অন্য মামলায় আদালতে সাক্ষ্য প্রদান

কক্সবাজার প্রতিনিধি:
সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি পুলিশের সাবেক পরিদর্শক লিয়াকত আলীকে অন্য একটি মামলায় সাক্ষ্য দিতে কক্সবাজার
আদালতে আনা হয়।
টেকনাফের আব্দুল করিম হত্যা মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা হিসেবে সাক্ষ্য দিতে তাকে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে হাজির করা হয়।
রোববার সকাল ১১ টায় কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল আল মামুনের আদালতে লিয়াকত আলী সাক্ষ্য দেন বলে জানান জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ফরিদুল আলম।
লিয়াকত আলী টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সাবেক পরিদর্শক ও অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত প্রধান আসামি।
গত ৩১ জানুয়ারী মামলার রায় ঘোষণার পর থেকে তিনি ঢাকার কেন্দ্রিয় কারাগারে অন্তরীণ ছিলেন।
পিপি ফরিদুল বলেন, গত ২০১৯ সালের ২৭ আগস্ট টেকনাফ থানায় দায়ের হওয়া বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর শিলখালী এলাকার আব্দুল করিম হত্যা মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা ছিলেন লিয়াকত আলী। তিনি ওই মামলার ৬ জন
আসামীর জবানবন্ধি গ্রহণ করেছিলেন। মামলায় নির্ধারিত দিনে সাক্ষ্য প্রদানের জন্য লিয়াকতকে কক্সবাজার আদালতে আনা হয়েছিল। সাক্ষ্য প্রদান শেষে বেলা সাড়ে ১২ টায় তাকে কক্সবাজার কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।
এর আগে সকাল ১০ টায় পুলিশের কড়া পাহারায় প্রিজেন ভ্যানে লিয়াকত আলীকে আদালতে আনা হয়। এসময় আদালত এলাকায় নেওয়া ব্যাপক নিরাপত্তার পাশাপাশি অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

গত ২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুরে এপিবিএন চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

গত ৩১ জানুয়ারি আলোচিত এ মামলার রায় ঘোষণা করেন কক্সবাজারের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাঈল।
এতে টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও সাবেক পরিদর্শক লিয়াকত আলীকে মৃত্যুদন্ড এবং ছয়জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া মামলার অপর সাত আসামিকে খালাস দেয়া
হয়েছে।

আদেশের পর থেকে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি ঢাকার কেন্দ্রিয় কারাগারের কনডেম সেলে রাখা হয়। আর টেকনাফের আব্দুল করিম হত্যা মামলায় সাক্ষ্য প্রদানের জন্য লিয়াকত আলীকে শনিবার কক্সবাজার কারাগারে আনা হয়।

সেখান থেকে রোববার বিকালে তাকে ফের ঢাকা কেন্দ্রিয় কারাগারে পাঠানো হবে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।