২২ জুন, ২০২৪ | ৮ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৫ জিলহজ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ব্যাচ ২০১৯-এর ঈদ পূণর্মিলন অনুষ্ঠিত হয়েছে   ●  পাহাড় ধ্বসঃ ৮ রোহিঙ্গাসহ নিহত ১০   ●  উখিয়ার ক্যাম্পে পৃথক পাহাড় ধ্বসে ৭ রোহিঙ্গা সহ নিহত ৯   ●  রামুতে ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা   ●  উখিয়া-টেকনাফের ৫ শতাধিক তরুন-তরুণীকে কারিগরি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘সুশীলন’   ●  খাদ্যে ভেজাল রোধে সামাজিক আন্দোলন দরকার : খাদ্যমন্ত্রী   ●  ইজিবাইকের ছাদে তুলে ৮ বছরের শিশু নির্যাতন ভিডিও ভাইরাল: তিন অভিযুক্ত গ্রেপ্তার   ●  ভবিষ্যতে প্রেস কাউন্সিলের সার্টিফিকেট ছাড়া সাংবাদিকতা করা যাবে না   ●  একমাসেও অধরা ঘাতক চক্র, চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে পরিবারে হতাশ   ●  সমুদ্রকেই ঘিরে কক্সবাজারের অর্থনীতি

মানবপাচার রোধে একাধিক মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে কমিটি

Mossharraf_sm_851408946

মানবপাচার রোধে স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র, প্রবাসী কল্যাণসহ সংশ্লিষ্ট সব মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

বুধবার (৬ মে) বিকেলে তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি ‍এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি থাইল্যান্ডের গণকবর থেকে কিছু বাংলাদেশির মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় আমরা গভীর উদ্বিগ্ন। মানবপাচারের শিকার মানুষগুলোর এই পরিণতি আমাদের স্তম্ভিত করেছে। মানবপাচার রোধে সরকার আরও কঠোর হবে। শিগগির মন্ত্রিসভার আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত কমিটিতে বিষয়টি তুলবো। পাচারকারীদের বিষয়ে কঠোর সিদ্ধান্তে যেতে হবে সরকারকে।

ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমরা সবসময় অবৈধ পথে বিদেশে যেতে নিষেধ করি। এজন্য সচেতনতামূলক কর্মসূচি ও প্রচারণাও অব্যাহত রয়েছে। তারপরও এবারের ভয়াবহতা আমাদের স্তম্ভিত করেছে। এতোগুলো লোককে পাচার করে হত্যা করা হয়েছে- এটা আমাদের ধারণারও বাইরে ছিল। তাই, এবার আমাদের আইনের প্রয়োগ কঠোর করবো। স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র, প্রবাসী কল্যাণসহ সব মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে বৈঠক করবে।

প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী বলেন, আমরা বিশ্বাস করতে চাই, পাচারকারীরা লাইসেন্সধারী কোনো রিক্রুটিং এজেন্সির সঙ্গে জড়িত নয়। এরা আলাদা চক্র। তাদের শাস্তি দিতেই হবে। আর যদি এদের সঙ্গে কোনো সরকারি কর্মকর্তা বা লাইসেন্সধারী রিক্রুটিং এজেন্সি জড়িত থাকে তবে তাদেরও শাস্তি পেতে হবে।

এদিকে, একইসময়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম তার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, ৫ দিন ছুটির পর বুধবার থাইল্যান্ড সরকারের দফতরগুলো খুলেছে। আগামীকাল বা পরশু (বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার) আমরা সেখানে যাবো। তাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও বিভাগগুলোর তদন্তের পর আমাদেরও সুযোগ দেওয়া হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, যেহেতু এ বিষয়ে একাধিক মন্ত্রণালয় সম্পৃক্ত, তাই খুব শিগগির আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তার আগে, আমাদের জানতে হবে থাইল্যান্ডের ওই ঘটনায় বাংলাদেশের কতো নাগরিক নৃশংসতার শিকার হয়েছেন।

অবৈধ পথে বিদেশে যাওয়া ঠেকাতে দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হবে বলেও জানান মো. শাহরিয়ার আলম।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।