১৮ মে, ২০২৪ | ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ৯ জিলকদ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  ক্যাম্পের বাইরে সেমিনারে অংশ নিয়ে আটক ৩২ রোহিঙ্গা   ●  চেয়ারম্যান প্রার্থী সামসুল আলমের অভিযোগ;  ‘আমার কর্মীদের হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে’   ●  নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সবকিছু কঠোর থাকবে, অনিয়ম হলেই ৯৯৯ অভিযোগ করা যাবে   ●  উখিয়া -টেকনাফে শাসরুদ্ধকর অভিযানঃ  জি থ্রি রাইফেল, শুটারগান ও গুলিসহ গ্রেপ্তার ৫   ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হেড মাঝিকে  তুলে নিয়ে   গুলি করে হত্যা   ●  যুগান্তর কক্সবাজার প্রতিনিধি জসিমের পিতৃবিয়োগ   ●  জোয়ারিয়ানালায় কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় আহত রামু কলেজের অফিস সহায়ক   ●  রামুর বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে পুলিশের সহযোগিতায়  আসছে চোরাই গরু   ●  রামুতে ওসির আশকারায় এসআই আল আমিনের নেতৃত্বে ‘সিভিল টিম’   ●  ড. সজীবের সমর্থনে বারবাকিয়ায় পথসভা

মহেশখালী ধলঘাটায় কর্মসৃজন তিন প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ

21006_930705343635092_5443234173201185474_n
কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার ধলঘাট ইউনিয়নে অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচীর ২য় পর্যায়ের প্রকল্প মাঠে বিনা শ্রমিকে কাজের হিসাব গুনছেন চেয়ারম্যান। এমনি গুরুতর অভিযোগের প্রমাণ মেলেছে খোদ ওই ইউনিয়নের বর্তমাণ চেয়ারম্যান আহছান উল্লাহ বাচ্চুর বিরুদ্ধে।
জানাযায়, গত ১২মে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আনোয়ারুল নাসের বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে পরিদর্শনে গেলে উক্ত ইউনিয়নের ৩টি প্রকল্প এলাকায় ২৫৩ জনের বরাদ্ধকৃত শ্রমিকদের কাজের মাঠে অনুপস্থিত পেয়ে কাজের অসন্তোষ প্রকাশ করেন। পরদিন উপস্থিতির হার শূন্য লিখে ইউনিয়ন প্রকল্প সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান আহছান উল্লাহ বাচ্চুকে ৩দিনের মধ্যে লিখিত ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য নোটিশ প্রদান করে। পরিদর্শন কালের চিত্র ও স্থানীয়দের ভাষ্যমতে, উক্ত কর্মসূচীর ২য় পর্যায়ে ধলঘাট ইউনিয়নের ১নং প্রকল্প (খাতুরবাপের পাড়া থেকে সাপমারার ডেইল ঘাট পর্যন্ত মাঠি দ্বারা উন্নয়ন) শ্রমিক সংখ্যা ৫০ জন প্রকল্পের সভাপতি রেনুয়ারা। ২নং প্রকল্প (ধলঘাটা মাতারবাড়ী প্রধান সড়কের নুরুচ্ছফার বাড়ী হইতে মৌঃ মোঃ হোসাইনের বাড়ী পর্যন্ত মাটি দ্বারা উন্নয়ন) শ্রমিক সংখ্যা ৩৫জন, প্রকল্পের সভাপতি করিমা বেগম। ৩নং প্রকল্প (ধলঘাটা বনজামিরা ঘোনা ছাহেব মিয়া বাপের বাড়ী হইতে ছাবের আহাম্মদের বাড়ী পর্যন্ত বাধঁ নির্মাণ) শ্রমিক সংখ্যা ১৬৮জন, প্রকল্পের সভাপতি জিন্নাত আরা বেগম। এসব কাজের জন্য নিয়োগ প্রাপ্ত ইউনিয়ন ট্যাগ অফিসার উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মোঃ নাজির হোসেন ৮ মে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে প্রথম দু’সপ্তাহের কাজের প্রতিবেদনে জানান, উক্ত ৩টি প্রকল্পের কাজে শ্রমিক উপস্থিতির হার শুন্য। ফলে পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সুপারিশ করেন তিনি। ৩মে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নিজে ধলঘাট ইউনিয়নের কর্মসংস্থান কর্মসূচীর প্রকল্প কাজের সরেজমিনে পরিদর্শন কালে শ্রমিক অনুপস্থিত পেয়ে প্রকল্প সভাপতিদেরকে কারণ দর্শানো নোটিশ প্রদান করেন।
উক্ত নোটিশের পরিপেক্ষিতে লিখিত জবাবে প্রকল্পের সভাপতি মহিলা সদস্যগণ জানান, কমিটির সভাপতির চেয়ারম্যান নামে মাত্র আমাদেরকে ব্যবহার করেন। কোন জবাবদিহিতার সুযোগ রাখেননি এবং প্রয়োজনও মনে করেন না। চেয়ারম্যানের লোক মারফত প্রকল্পগুলি তদারকি করে থাকেন। উক্ত প্রকল্পে ২৫৩জনের শ্রমিকের নামের তালিকার ব্যাপারেও আমারা অবগত নয়। ফলে তারা চেয়ারম্যান আহছান উল্লাহ বাচ্চুর ক্ষমতার কাছে জিম্মি বলে মনে করেন।
প্রসংগত, ২৫শে এপ্রিল মহেশখালীর সকল ইউনিয়নে অতি দরিদ্রদের কর্মসংস্থান প্রকল্পের ২য় পর্যায়ের কাজ শুরু হয়। উক্ত বরাদ্ধ থেকে ১৯ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ পায় ধলঘাট ইউনিয়ন । ধলঘাট ইউনিয়ন ছাড়া উপজেলার অন্যান্য ইউনিয়ন সমূহ কাজ শুরু করে কাজের অগ্রগতি এগিয়ে নিলেও সরকার দলীয় আওয়ামীলীগ নেতার পরিচয়ে চেয়ারম্যান আহছান উল্লাহ বাচ্চুর ইউনিয়নে কাজ না করে প্রকল্প সভাপতিদের অগোচরে বিল উত্তোলনের চেষ্টা করছিলেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।
গত অর্থ বছরেও এ ইউনিয়নে অনেক উন্নয়ন প্রকল্পে অনিয়মের কারনে বিল বন্ধ ছিল। বর্তমান বরাদ্দের সময়ে প্রকল্পগুলোর কাজ সঠিক ভাবে সম্পন্ন করা গেলে সুবিধা বঞ্চিত ধলঘাটার স্কুল মাদ্রাসা পড়–য়া ছাত্র- ছাত্রীসহ জনসাধারণ পায়ে হেটে যাওয়ার সুযোগ পেত। ভাগ বাটোয়ারার দন্ধে প্রকল্প সমূহের টাকা ফেরত গেলে আগামী বর্ষা মৌসুমে জোয়ারের পানিতে পানি বন্ধি থাকবে এলাকার হাজারো জনসাধারণ। চলতি অর্থ বছরে পানি উন্নয়ন বোর্ডের টেন্ডারে প্রকৌশলীর জালিয়াতির কারণে বেড়ি বাঁধের কাজ বন্ধ রয়েছে।
এব্যপারে জানতে চাইলে ধলঘাট ইউপি চেয়ারম্যান আহছান উল্লাহ বাচ্চু বলেন, শ্রমিকরা কাজ করেনি বিল ব্যাংকে রয়েছে আমার করার কিছু নেই।
এব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শফিউল আলম সাকিব জানান , চেয়ারম্যানের গাফিলতি ও মেম্বারদের রশি টানাটানিতে প্রকল্প এলাকায় কাজ হয়নি। পূনরায় কাজ শুরু করার জন্য ইউএনও মহোদয় উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী অফিসার আনোয়ারুল নাসের জানান, বরাদ্দকৃত টাকার কাজের জন্য পূনঃবিন্যাশ করা হয়েছে। অতিদ্রুত কাজ শুরু করা হবে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।