২২ জুন, ২০২৪ | ৮ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৫ জিলহজ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ব্যাচ ২০১৯-এর ঈদ পূণর্মিলন অনুষ্ঠিত হয়েছে   ●  পাহাড় ধ্বসঃ ৮ রোহিঙ্গাসহ নিহত ১০   ●  উখিয়ার ক্যাম্পে পৃথক পাহাড় ধ্বসে ৭ রোহিঙ্গা সহ নিহত ৯   ●  রামুতে ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা   ●  উখিয়া-টেকনাফের ৫ শতাধিক তরুন-তরুণীকে কারিগরি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘সুশীলন’   ●  খাদ্যে ভেজাল রোধে সামাজিক আন্দোলন দরকার : খাদ্যমন্ত্রী   ●  ইজিবাইকের ছাদে তুলে ৮ বছরের শিশু নির্যাতন ভিডিও ভাইরাল: তিন অভিযুক্ত গ্রেপ্তার   ●  ভবিষ্যতে প্রেস কাউন্সিলের সার্টিফিকেট ছাড়া সাংবাদিকতা করা যাবে না   ●  একমাসেও অধরা ঘাতক চক্র, চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে পরিবারে হতাশ   ●  সমুদ্রকেই ঘিরে কক্সবাজারের অর্থনীতি

মহেশখালীতে পানের ভাস্কর্য নির্মাণের উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি:
সুমিষ্ট পানের জন্য বিখ্যাত দ্বীপ উপজেলা মহেশখালীর সৌন্দর্য বাড়াতে পানের ভাস্কর্য নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। গতকাল শুক্রবার মহেশখালী গোরকঘাটা জেটি ঘাটের সংলগ্ন এলাকায় দুই কোটি টাকা ব্যয়ে এ ভাস্কর্য নির্মাণের কাজ উদ্বোধন করা হয়।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মহেশখালী কুতুবদিয়া আসনের সংসদ সদস্য আশেকউল্লাহ রফিক।
কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কউক চেয়ারম্যান কমোডর (অব) মোহাম্মদ নুরুল আবছারের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা।
কউক চেয়ারম্যান কমোডর (অবঃ) মোহাম্মদ নুরুল আবছার বলেন, এ প্রকল্পের আওতায় পর্যায়ক্রমে মহেশখালীতে পাবিলিক সিটিং ও নামাজের ব্যবস্থা, পরর্যটকদের জন্য শপিং ও উন্নতমানের রেষ্টুরেন্টের ব্যবস্থা,পাবলিক টয়লেট নির্মাণসহ বিভিন্ন উন্নমূলক কাজ বাস্তবায়ন করা হবে।
তিনি আরও বলেন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ যে মহা পরিকল্পনার কাজ করতেছে তাতে মহেশখালীকে  অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তাই আমি মহেশখালীর জনগনকে সাথে নিয়ে কাজ করব ইনশাআল্লাহ। সর্বপরি আমি আপনাদেরই সন্তান,  তাই আপনাদের সাথে থেকে আপনাদের বিশ্বাস এবং ভালবাসা নিয়ে মহেশখালীকে একটি পর্যটন বান্ধব পরিকল্পিত নগরি হিসেবে মহেশখালীবাসীকে উপহার দিতে চাই।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে  মহেশখালী কুতুবদিয়া আসনের সংসদ সদস্য  আশেকউল্লাহ রফিক বলেন, গোরক ঘাটা জেটি ঘাটে বসার কোন ব্যবস্থা না থাকায় কি পরিমান সমস্যায় হচ্ছে, নামাজের এবং পাবলিক টয়লেটের কোন ব্যবস্থা নাই। কউক চেয়ারম্যান আমাদের এলাকার সন্তান হিসেবে সাধারন মানুষের কষ্ট অনুভব করে পাবিলিক সিটিং ও নামাজের ব্যবস্থা, পর্যটকদের জন্য শপিং ও উন্নতমানের রেষ্টুরেন্টের ব্যবস্থা এবং পাবলিক টয়লেটের ব্যবস্থা করে দিচ্ছেন। তার এই অসাধারণ উদ্যোগের জন্য আমি মহেশখালীর জনগনের পক্ষে সাধুবাদ জানায়।
সভায় মহেশখালী আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার পাশা, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আজিজুর রহমান ও কউক সদস্য প্রকৌশল লে. কর্নেল মোহাম্মদ খিজির খান মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইয়াছিনসহ আরো অনেকেই বক্তব্য রাখেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।