২২ মে, ২০২৪ | ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ১৩ জিলকদ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার প্রথম নির্বাচনে সহিংসতায় যুবক খুন; বসতবাড়ি ভাংচুরের অভিযোগ    ●  এভারকেয়ার হসপিটালের শিশু হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. তাহেরা নাজরীন এখন কক্সবাজারে   ●  কালেক্টরেট চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতির সভাপতি আব্দুল হক, সম্পাদক নাজমুল   ●  ক্যাম্পের বাইরে সেমিনারে অংশ নিয়ে আটক ৩২ রোহিঙ্গা   ●  চেয়ারম্যান প্রার্থী সামসুল আলমের অভিযোগ;  ‘আমার কর্মীদের হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে’   ●  নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সবকিছু কঠোর থাকবে, অনিয়ম হলেই ৯৯৯ অভিযোগ করা যাবে   ●  উখিয়া -টেকনাফে শাসরুদ্ধকর অভিযানঃ  জি থ্রি রাইফেল, শুটারগান ও গুলিসহ গ্রেপ্তার ৫   ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হেড মাঝিকে  তুলে নিয়ে   গুলি করে হত্যা   ●  যুগান্তর কক্সবাজার প্রতিনিধি জসিমের পিতৃবিয়োগ   ●  জোয়ারিয়ানালায় কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় আহত রামু কলেজের অফিস সহায়ক

বিমানবন্দরে হেনস্থার শিকার অভিনেত্রী সাফা কবির

বিনোদন ডেস্কঃ হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে হেনস্তার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন মডেল ও অভিনেত্রী সাফা কবির। বুধবার সন্ধ্যা ৭ টা ১৫ মিনিটে নাকি এমন ঘটনা ঘটে। বিমানবন্দরে কাস্টমসের সাদা পোশাকধারী একদল নিরাপত্তারক্ষীর হাতে নাকি হেনস্তার শিকার হয়েছেন তিনি। সেসময় তিনি একা ছিলেন।

সাফা বলেন,‘থাইল্যান্ড থেকে সাড়ে চারটায় বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে সন্ধ্যায় ঢাকায় পৌঁছাই। বিমানবন্দরের কাস্টমস অতিক্রম করার সময় একদল সাদা পোশাকধারী নিরাপত্তাকর্মী আমাকে তিনটি লাগেজসহ থামান। এরপর ওই নিরাপত্তারক্ষীরা আমাকে ‘মিডিয়ার মেয়ে’ বলে আরও কিছু কটুক্তি করে। একপর্যায়ে আমার তিনটি লাগেজ তল্লাশি করতে চান। ওইসময় নিরাপত্তারক্ষীরা পুরুষ হওয়ায় আপত্তি করি। কিন্তু তারা জোর করেন।’

তিনি আরও বলেন,‘নারী নিরাপত্তারক্ষীদের মাধ্যমে তার লাগেজ চেক করতে। কিন্তু ওই পুরুষ নিরাপত্তারক্ষীরা কোনোভাবেই নারী নিরাপত্তারক্ষী দিয়ে সাফা কবিরের লাগেজ তল্লাশি করতে চাননি।

সাফা কবির তখন জানান, নারী হিসেবে তার প্রাইভেসি আছে। তাই নারী নিরাপত্তারক্ষী দিয়েই তাকে তল্লাশি করাতে৷ তখন সাদা পোশাকধারী ওই নিরাপত্তারক্ষীরা বলেন, মিডিয়ার মেয়ের আবার প্রাইভেসি কিসের? সবকিছুই পাবলিকের।

এভাবে দু-পক্ষের কথা কাটাকাটি চলে প্রায় ৩০ মিনিট। একপর্যায়ে একজন নারী নিরাপত্তারক্ষী দিয়ে ব্যাগ তল্লাশি করান। কিন্তু অবৈধ কিছু পাননি। সাফা বলেন, তারা আমাকে ঘিরে ধরেন। তল্লাশি করে আটকাতে না পেরে আমার বহন করে আনা জিনিসের ট্যাক্স দাবি করে। কিন্তু আমার কাছে ট্যাক্স দেওয়ার মতো কোনো পণ্য ছিল না। পরে আটকাতে না পেরে ছেড়ে দেয়।

সাফা কবির বলেন, আমার তিনটি লাগেজে পোশাক ও অন্যান্য সামগ্রী ছিল। নিরাপত্তার নামে আমি হেনস্তা হয়েছি। নিরাপত্তা রক্ষীরা আমাকে সাহায্য না করে বরং চরম অপমান করেছেন। এভাবে হেনস্তা করার সময় আশপাশের অনেক মানুষ জড়ো হয়। সেগুলো তারা ভিডিও করেছে।’

তিনি বিমানবন্দরের নিরাপত্তা নিয়ে বলেন,‘ এমন গুরুত্বপূর্ণ একটি স্থানে যদি একজন মেয়ে হিসেবে আমি চরম অপদস্থ হয়েছি। মিডিয়ার মেয়ে বলে ওই নিরাপত্তারক্ষীরা আমাকে বাজেভাবে অপমান করেছেন। শিল্পী তো দূরের কথা, দেশের একজন নাগরিকের মতোও ব্যবহার করেনি। কর্তৃপক্ষের এ বিষয়ে তদন্ত করে ওইসব নিরাপত্তাকর্মীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।’

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।