১৭ এপ্রিল, ২০২৪ | ৪ বৈশাখ, ১৪৩১ | ৭ শাওয়াল, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  ‘বনকর্মীদের শোকের মাঝেও স্বস্তি, হত্যার ‘পরিকল্পনাকারি কামালসহ গ্রেপ্তার আরও ২   ●  উখিয়া নাগরিক পরিষদ এর ঈদ পুনর্মিলনী ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত   ●  আদালতে ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার দায়স্বীকার সেই ডাম্পার চালক বাপ্পির   ●  ‘অভিযানে ক্ষুব্ধ, ফরেস্টার সাজ্জাদকে পূর্বপরিকল্পনায় হত্যা করা হয়’   ●  ফাঁসিয়াখালীতে পৃথক অভিযানে জবর দখল উচ্ছেদ, বালিবাহী ডাম্পার জব্দ   ●  অসহায়দের পাশে ‘রাবেয়া আলী ফাউন্ডেশন’   ●  ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার মূল ঘাতক সেই বাপ্পী পুলিশের জালে   ●  ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশন অব কক্সবাজার,ক্র্যাকের সভাপতি জসিম, সম্পাদক নিহাদ   ●  নতুন জামাতে রঙিন ১০০ শিশুর মুখ   ●  মহেশখালী উপজেলা আ’লীগ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার পাশা চৌধুরীর মৃত্যুতে জেলা আ’লীগের শোক

প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে স্বাগত জানানো কক্সবাজারবাসীর নৈতিক দায়িত্ব -মেয়র মুজিব

নিজস্ব প্রতিবেদক:
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অসাধারণ সৎ। তার মতো একজন দক্ষ দেশ চালক যে আমরা পেয়েছি, তা আমাদের বড় সৌভাগ্য। আগামী ৭ ডিসেম্বর তিনি কক্সবাজার আসবেন। তার আগমনকে স্বাগত জানানো কক্সবাজারবাসীর নৈতিক দায়িত্ব।
বুধবার (৩০ নভেম্বর) রাতে আবাসিক হোটেল মালিকদের প্রস্তুতি সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, শেখ হাসিনার কেরিশমেটিক নেতৃত্ব গুণে বাংলাদেশ আজ এই পর্যায়ে। আমরা না চাইতেও তিনি অনেক কিছু দিয়েছেন।
হোটেল মোটেল গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব আবুল কাশেম সিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মেয়র মুজিব বলেন, ইদানিং পর্যটন শহরটি সাইনবোর্ডের শহরে পরিণত হয়েছে। এ অবস্থা বেশি দিন থাকবে না। সবাইকে একই ডিজাইনের সাইনবোর্ড করতে হবে। ইচ্ছে করলেই যেমন তেমন সাইনবোর্ড বানাতে পারবে না।
সমিতির সাধারণ সম্পাদক সেলিম নেওয়াজের সঞ্চালনায় এতে তিনি আরো বলেন, হোটেল মোটেল জোনের কোথাও পরিত্যক্ত জায়গা যেন না থাকে। সৌন্দর্যবর্ধনমূলক কাজ দিয়ে ভরপুর করে রাখুন। কারণ, খালি পেলেই কিছু লোক তা দখল করে নেয়। তাতে ব্যবহার করে মুজিব চেয়ারম্যানের নাম। এটি আমার জন্যও দুঃখ, অপমানের। দখলবাজি বন্ধ করতে যা করার তাই করব। জেনেশুনে কেন হারাম খাবেন? হক হালালের জন্য সবার চিন্তা করা দরকার।
হোটেল মালিকদের উদ্দেশ্যে মেয়র মুজিবুর রহমান বলেন, পর্যটকদের যথাযথ মোহমানদারির দায়িত্ব আপনাদের। তাদের কারণে আপনাদের জীবিকা। পর্যটকদের সম্মানহানি হয় এমন কোন আচরণ ও কর্ম করা যাবে না।
অনুষ্ঠানে সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রফিকুল ইসলাম বলেন, গত দুই মাসে যে পরিমাণ ছিনতাইকারী ধরেছি পুরো চাকুরী জীবনে তা ধরিনি। এখানকার অবস্থা খুব খারাপ। অপরাধ নির্মূলে সবাইকে সচেতন হতে হবে। নিজের প্রতিষ্ঠান নিজেই পরিচ্ছন্ন রাখুন। আপনাদের হোটেলের অপরাধের কারণে আমাদের যেন অযথা দৌঁড়াতে না হয়।
ওসি বলেন, পর্যটকের সকল তথ্য হোটেলে রাখতে হবে। তিনদিনের অধিক সময় কোন গেস্ট থাকলে তার বিস্তারিত প্রশাসনকে জানাবেন। শিশু ও কোন রোহিঙ্গা যাতে চাকুরী না করে।
তিনি বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশের জিরো টলারেন্স। অনুমোদিত বার ছাড়া কোন হোটেলে মাদক সেবন বা বিক্রি করা যাবে না। অপরাধ নির্মূলে আপনাদের সহযোগিতা চাই।
প্রস্তুতি সভায় হোটেল মোটেল গেস্ট হাউস মালিক সমিতির সিনিয়র সহসভাপতি সরওয়ার কামাল, প্রধান উপদেষ্টা আলহাজ্ব ওমর সুলতান কোম্পানি, আইন উপদেষ্টা এডভোকেট রেজাউল করিম রেজা, সদস্য এম রেজাউল করিম রেজাসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।