১৮ মে, ২০২৪ | ৪ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ৯ জিলকদ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  ক্যাম্পের বাইরে সেমিনারে অংশ নিয়ে আটক ৩২ রোহিঙ্গা   ●  চেয়ারম্যান প্রার্থী সামসুল আলমের অভিযোগ;  ‘আমার কর্মীদের হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে’   ●  নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সবকিছু কঠোর থাকবে, অনিয়ম হলেই ৯৯৯ অভিযোগ করা যাবে   ●  উখিয়া -টেকনাফে শাসরুদ্ধকর অভিযানঃ  জি থ্রি রাইফেল, শুটারগান ও গুলিসহ গ্রেপ্তার ৫   ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হেড মাঝিকে  তুলে নিয়ে   গুলি করে হত্যা   ●  যুগান্তর কক্সবাজার প্রতিনিধি জসিমের পিতৃবিয়োগ   ●  জোয়ারিয়ানালায় কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় আহত রামু কলেজের অফিস সহায়ক   ●  রামুর বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে পুলিশের সহযোগিতায়  আসছে চোরাই গরু   ●  রামুতে ওসির আশকারায় এসআই আল আমিনের নেতৃত্বে ‘সিভিল টিম’   ●  ড. সজীবের সমর্থনে বারবাকিয়ায় পথসভা

পেকুয়ায় যুবলীগের এক নেতার অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দিলেন ইউএনও

pic.pekua house-08-03-15
পেকুয়ার টইটং এ যুবলীগের এক নেতার অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মারুফুর রশিদ খান। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, ৮মার্চ সকাল ১১টার দিকে উপজেলার টইটং নাপিতখালী মৌলভী তোরাবউদ্দিন পাড়ায় টইটং ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি এনামের অবৈধ ভাবে নির্মানাধীন একটি ঘর ভেঙ্গে গুড়িয়েদেন ইউএনও মারুফুর রশিদ খাঁন। জানাযায়, এরশাদ আলী ওয়াকফ ষ্টেটের মালীকানাধীন ওই জায়গা জবর দখল করে এক সাপ্তাহ ধরে মাটি কেটে বসতঘর তৈরী করছিল যুবলীগ নেতা এনাম। ওই ষ্টেটের বর্তমান মতোয়াল্লী বাংলাদেশ সরকার পক্ষে পেকুয়ার ইউএনও নিজেই। পেকুয়ার ইউএনও মারুফুর রশিদ খাঁন বলেন, এনাম সরকারী জায়গা জবর দখল করে ঘর তৈরী করে বিক্রি করার পরিকল্পনায় একাজ করছিল এমন সংবাদ পেয়ে ওই স্থাপনা সরিয়ে নিতে বলার পর বাধ্য হয়ে সরকারী জায়গা জবর দখল মুক্ত করতে এ অভিযান চালানো হয়েছে। স্থানীয় লোকজন বলেন, এরশাদ আলী ওয়াকফ ষ্টেটের এ জায়গা বিগত ১শ বছর ধরে বংশ পরম্পরায় ষ্টেটকে খাজনা দিয়ে ভোগ দখল করে আসছে স্থানীয় বশির আহমদের ছেলে জাকের হোসেন ও জহির আহমদ। কিন্তু যুবলীগ নেতা এনাম দানু মিয়ার ছেলে জাগু মাঝি, মোসলেম উদ্দিনের ছেলে ফোরকান, হাছিম আলীর ছেলে সৈয়দ আহমদ জায়গাটি জবর দখল করে ঘর তৈরী করে আসছিল। জাকের হোসেনের স্ত্রী হোসনে আরা বলেন, জায়গাটি তার দাদা শশুড়ের আমল থেকে ষ্টেটকে খাজনা দিয়ে ভোগ করে আসছে। গত ৩বছর পূর্বে তাদের বসতঘর সংস্কারের জন্যে ঘরের ছালা খুললে এনাম সহ তার সহযোগীরা এখনো পর্যন্ত ঘরটি সংস্কার করতে দেয়নি। তিন বছর ধরে বৃষ্টিতে ভিজে ও রোদে শোকিয়ে বসবাস করে আসেছে। হঠাৎ করে তাদের জায়গার মাথাখিলায় এনাম, জাগুমাঝি ফোরকান ও সৈয়দ আহমদ বসতঘর তৈরী করলে ওয়াকফ ষ্টেটের মতোয়াল্লী ইউএনও পুলিশ নিয়ে ঘরটি গুড়িয়ে দেন। তিনি আরো বলেন, এনাম তার বাহিনীর লোকজন নিয়ে নিত্যদিন ছেলে মেয়ে নিয়ে বসতঘর ছেড়ে চলে যেতে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে কয়েকবার তাদের ওপর হামলাও করেছে তিনি সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রেহায় পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।