৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ২০ মাঘ, ১৪২৯ | ১১ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

পেকুয়ায় দুর্বৃত্তের আগুনে দুটি বসতঘর পুড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

pic.pekua_fiar-06-03-15[1] পেকুয়ার টইটং নাপিতখালীতে দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে ২টি বসতঘর পুড়ে ভস্মিভ’ত হয়ে গেছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও পেকুয়া ফায়ার সার্ভিস সুত্রে জানাগেছে, উপজেলার টইটং নাপিতখালী সিকদার বাড়ীর সৈয়দ আহমদ সিকাদারের লোকজন শূন্য বসতবাড়ীতে ৫ মার্চ দিবাগত রাত ৭টার দিকে দুর্বৃত্তরা আগুন দিলে দুটি বসতঘর ও একটি রান্নাঘর জ্বলে ভস্মিভ’ত হয়েযায়। এতে সৈয়দ আহমদ সিকদারের বসতঘরের প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র, জায়গাজমির প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও প্রায় ৩শ আড়ি ধান পুড়ে অঙ্গার হয়েযায়। প্রত্যক্ষদর্শী ও সৈয়দ আহমদের স্ত্রী সাজেদা বেগম বলেন, গতদুদিন ধরে তিনি চিকিৎসার নিতে চট্টগ্রামে থাকা অবস্থায় লোকশূণ্য বসতঘর আগুনে  জ্বলেগেছে শুনে তিনি তার বিশ্ববিদ্যালয় পড়–য়া দুসন্তান সহ বাড়ীতে এসে দেখেন তার ছেলে সন্তান ও অসুস্থ স্বামীকে নিয়ে মাথাগুজার ঠাইটুকু দুর্বৃত্তরা জ্বালিয়েদিয়েছে। তিনি বলেন, তার স্বামীর ভাই আকতার আহমদ সিকদারের সাথে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরধরে তার ছেলে হানিফ, ফয়সাল আকবর ও স্থানীয় ছাবের আহমদ দীর্ঘদিন ধরে তাকে বসতঘর থেকে উচ্ছেদ করতে মরিয়া হয়ে নানা ভাবে হয়রানি করে এসে শেষ পর্যন্ত তার বসতঘরটি জ্বালিয়ে দিয়ে স্বপরিবারে নি:শেষ করার পায়তারা হিসেবে এঘটনা ঘটিয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, সৈয়দ আহমদ সিকদারের বসতঘরে আগুণ জ্বললেও আপন ভাই হয়েও মোখতার আহমদ সিকদারের পুকুর থেকে পানি নিয়ে গ্রাম বাসীকে আগুন নিবৃত করতে দেয়নি। পেকুয়া থেকে ধমকলবাহিনীর লোকজন আসার আগেই সব শেষ হয়েযায়। তারা আরো বলেন, আখতার আহমদের বাড়ীর লোকজন ফায়ার সার্ভিসের লোকজনকে পর্যন্ত কোনপ্রকার সহযোগীতা করেনি। গৃহকত্রী সাজেদা বেগম আরো বলেন, আমার ঘরে দুদিন ধরে কোন লোকজন ন্ইা তার ঘরে কোন প্রকার বিদ্যূতের সংযোগ নেই সেখানে আগুনে জ্বলে যাওয়া নাশকতা ছাড়া আর কিছুই তিনি মনে করছেননা বলে জানান। এদিকে টইটং ইউপি চেয়ারম্যান মোসলেম উদ্দিন ও স্থানীয় মেম্বার সহ গন্যমান্য ব্যক্তিরা আগ্নিকান্ডস্থল পরিদর্শন করেন।
এব্যাপারে টইটং ইউপি চেয়ারম্যান মোসলেম উদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কিসের আগুনে বসতঘর ও দুটি রান্নাঘর জ্বলে গেছে তা নিশ্চিত না আকতার আহমদের রান্নাঘর থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে স্থানীয় লোকজন মন্তব্য করতে শুনেছেন। পেকুয়া ফায়ার সার্ভিস সুত্রে জানাগেছে হয়ত সৌর বিদ্যূতের শর্টসার্কিসেও আগুনের সূত্র পাত হতে পারে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।