১৭ জুন, ২০২৪ | ৩ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১০ জিলহজ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  উখিয়া-টেকনাফের ৫ শতাধিক তরুন-তরুণীকে কারিগরি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘সুশীলন’   ●  খাদ্যে ভেজাল রোধে সামাজিক আন্দোলন দরকার : খাদ্যমন্ত্রী   ●  ইজিবাইকের ছাদে তুলে ৮ বছরের শিশু নির্যাতন ভিডিও ভাইরাল: তিন অভিযুক্ত গ্রেপ্তার   ●  ভবিষ্যতে প্রেস কাউন্সিলের সার্টিফিকেট ছাড়া সাংবাদিকতা করা যাবে না   ●  একমাসেও অধরা ঘাতক চক্র, চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে পরিবারে হতাশ   ●  সমুদ্রকেই ঘিরে কক্সবাজারের অর্থনীতি   ●  সামাজিক কাজে বিশেষ অবদানের জন্য হাসিঘর ফাউন্ডেশনকে সম্মাননা স্মারক প্রদান   ●  ডা.আবু বকর ছিদ্দিক এর চতুর্থ  মৃত্যুবার্ষিকী শনিবার    ●  কক্সবাজারে আইএসইসি প্রকল্পের অধীনে যুবক-যুবতীদের প্রশিক্ষণ ও সনদ বিতরণ    ●  কক্সবাজারে শ্রেষ্ঠ সার্কেল রাসেল, ওসি মুহাম্মদ ওসমান গনি 

পেকুয়ায় গণধোলাইয়ে ডাকাত নিহত; আটক-২

পেকুয়ায় জনতার গনধোলাইয়ে জামাল হোসেন (৩৫) নামের এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরো দুই ডাকাতকে জনতা গনধোলাই দিয়ে পুলিশের কাছে সোর্পদ করে। বুধবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার শিলখালী ইউনিয়নের জারুলবুনিয়া সাপেরগাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গণধোলাইয়ে নিহত জামাল হোসেন ওই ইউনিয়নের সাপেরগাড়া এলাকার মৃত আলমগীরের ছেলে। আহতরা হলেন একই এলাকার নাজিম উদ্দিনের ছেলে কাউসার (২৫) ও বারবাকিয়া ইউনিয়নের পাহাড়ীয়াখালী এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে নাছির হোসাইন। বর্তমানে আহতরা পুলিশ হেফাজতে পেকুয়া সরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদের মধ্যে কাউসারের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে চমেক হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।
স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়, মঙ্গলবার রাতে ডাকাতদলের গুলিতে সাপের গারা এলাকায় মালয়েশিয়া প্রবাসী যুবক নুরুন্নবী নিহত হন। একই ঘটনায় নুরুন্নবীর মা হাজেরা বেগম ও ছোট ভাই মোজাম্মেল গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। ডাকাতদলের এলোপাতাড়ি গুলিতে তারা হতাহত হয়েছেন। এদিকে বিক্ষুদ্ধ জনতা সকালে জড়িত তিন ডাকাতকে গনধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। এ সময় জামাল হোসেন গনপিটুনিতে মারা যান।
পেকুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: কামরুল আজম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানায়, জনগণের গনপিটুনীতে এক ডাকাত নিহত হয়েছে। এছাড়াও দুই ডাকাতকে আটক করে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সূত্রঃ সিবিএন

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।