১৯ এপ্রিল, ২০২৪ | ৬ বৈশাখ, ১৪৩১ | ৯ শাওয়াল, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  কক্সবাজার পৌরসভায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুলের বরণ ও উপ-সহকারি প্রকৌশলী মনতোষের বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত   ●  জলকেলি উৎসবের বিভিন্ন প্যান্ডেল পরিদর্শনে মেয়র মাহাবুব   ●  উখিয়া সার্কেল অফিস পরিদর্শন করলেন ডিআইজি নুরেআলম মিনা   ●  ‘বনকর্মীদের শোকের মাঝেও স্বস্তি, হত্যার ‘পরিকল্পনাকারি কামালসহ গ্রেপ্তার আরও ২   ●  উখিয়া নাগরিক পরিষদ এর ঈদ পুনর্মিলনী ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত   ●  আদালতে ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার দায়স্বীকার সেই ডাম্পার চালক বাপ্পির   ●  ‘অভিযানে ক্ষুব্ধ, ফরেস্টার সাজ্জাদকে পূর্বপরিকল্পনায় হত্যা করা হয়’   ●  ফাঁসিয়াখালীতে পৃথক অভিযানে জবর দখল উচ্ছেদ, বালিবাহী ডাম্পার জব্দ   ●  অসহায়দের পাশে ‘রাবেয়া আলী ফাউন্ডেশন’   ●  ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার মূল ঘাতক সেই বাপ্পী পুলিশের জালে

পাগলিরবিলে অপরিকল্পিত ইট ভাটা, ,সড়কের ব্যাপক ক্ষতি,প্রশাসন নির্বিকার

index

উখিয়ার সবুজ শ্যামল ও কৃষির অপার সম্ভাবনাময়  মরিচ্যা পাগলির বিল এলাকার দিকে ভুমিদস্য, প্রভাবশালী ও    অতি মোনাফ লোভীদের কুনজর পড়ায় কৃষকদেরও ভুল বুঝিয়ে  কৃষি জমি উচ্চ  মুল্যে ক্রয় করে একের পর এক নির্মাণ করছে ইট ভাটা । বিগত ৩/৪ বছর যাবত এ এলাকায় ২টি  ইট ভাটার উৎকট গন্ধে,ধোঁয়ায় এলাকার পরিবেশ মারাতœকভাবে দূষিত হলেও ইট ভাটা মালিকরা টাকাওয়ালা ও প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পাইনাই।কিন্তু বর্তমানে মরিচ্যা  পাগলির বিল সড়কটি ইট ভাটার ভারী ট্রাক, ঢাম্পার চলাচলের কারণে  রাস্তায় বিছানো ইট গুলো প্রায় ভেংগে গিয়ে ব্যাপক খানাখন্দকের
সৃষ্টি হয়েছে এবং রাস্তার দু পাশ্ব দিন দিন ভেঙ্গে যাচ্ছে। এবং পরিবেশের মারাত্বক ক্ষতি হচ্ছে । পাগলির বিল সড়ক দিয়ে যান চলাচল প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে।এ ছাড়া ইট ভাটার  উৎকট গন্ধে এলাকার বাতাস, পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে। এমন দূষিত বাতাসের ফলে  কি ধরণের রোগব্যাধী  হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে ককসবাজারের বেশ কয়েকজন মেডিসিন বিশেষঞ জানান, এ্যজমা, শ্বাসকষ্ট,ফুসফুস ক্যান্সারসহ বিভিন্ন মারাতœক েেরাগব্যাধী হতে পারে বিশেষকরে ইটভাটার পাশ্ববর্তী থাকা শিশুও বৃদ্ধরা খুবই ঝুকিপুর্ণ ।স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ সাইফুল¬াহ সিকদার  সাইফুল মেম্বার, সমাজ সেবক ককসবাজার আইনজীবি সহকারী সমিতির সাবেক  সভাপ্রতি মুন্স্ িমাহমুদুল হক চেীং, হাজী আবুল কাসেম,ছাত্রনেতা আবছার উদ্দিন শাšতসহ  স্থানীয়দের সবাই অকপটে এই প্রতিবেদকের কাছে ইট ভাটার কারণে এলাকার পরিবেশ বিনষ্ট,রাস্তার বেহাল দশা, রাত দিন মাঠির টপ সয়েল বিক্রির কারণে ক্ষতির কথা স্বীকার করেন।বিশেষ করে এ বছর আম গাছে যতেষ্ট মুকুল আসলেও আম ধরেছে (ফলন) খুবই কম যার একমাত্র কারণ ইট ভাটার দূষিত বাতাস বলে মনে করছেন পরিবেশবাদী লোকজন।পাগলিরবিল কৃষি নির্ভর এলাকা হওয়ায় এ এলাকায় সরকার ৪-৫ কোঠি টাকা ব্যয়ে রাবারড্যাম নির্মাণ করেছে অথচ আগামী কয়েক বছরের মধ্যে কৃষি আবাদযোগ্য জমি আশংকাজনক হারে কমে যাচ্ছে এ ছাড়া মাঠির টপসয়েল বিক্রির ফলে মাঠির উর্বরতা কমে গিয়ে  ধানের ফলন কম হবে বলে মনে করছেন কৃষিবিদরা ।ইট ভাটার ভারী যান চলাচলের ফলে   মরিচ্যা পাগলির বিল সড়কটি যানচলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। পুর্ব পাগলির বিলের নুরু ড্রাইভারদের বিশাল ইট ভাটাটির চারপাশে কৃষি জমি ও ঘরবাড়ি থাকাসহ ইটভাটা স্থাপন নীতিমালা  পরিপন্থি হলেও এই ইটভাটার ব্যাপারে পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হলেও প্রভাবশালী ইটভাটা মালিকের বিরোদ্ধে কোন ধরনের প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নিই।লোকমুখে শোনাযায় মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে সংশ্লিদের ম্যনেজ করা হয় ।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।