৩০ জানুয়ারি, ২০২৩ | ১৬ মাঘ, ১৪২৯ | ৭ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ   ●  সেন্টমার্টিনে রিসোর্ট নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ দিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর   ●  তত্ত্বাবধায়কের কাছে ভুক্তভোগীর আবেদন চিকিৎসার জন্য টাকা দাবি করলো নার্স, হুমকির অভিযোগ   ●  ডিজিটাল আইল্যান্ডকে স্মার্ট আইল্যান্ডে পরিণত করার পেছনের গল্প রচনা করবে ছাত্রলীগ

পাগলিরবিলে অপরিকল্পিত ইট ভাটা, ,সড়কের ব্যাপক ক্ষতি,প্রশাসন নির্বিকার

index

উখিয়ার সবুজ শ্যামল ও কৃষির অপার সম্ভাবনাময়  মরিচ্যা পাগলির বিল এলাকার দিকে ভুমিদস্য, প্রভাবশালী ও    অতি মোনাফ লোভীদের কুনজর পড়ায় কৃষকদেরও ভুল বুঝিয়ে  কৃষি জমি উচ্চ  মুল্যে ক্রয় করে একের পর এক নির্মাণ করছে ইট ভাটা । বিগত ৩/৪ বছর যাবত এ এলাকায় ২টি  ইট ভাটার উৎকট গন্ধে,ধোঁয়ায় এলাকার পরিবেশ মারাতœকভাবে দূষিত হলেও ইট ভাটা মালিকরা টাকাওয়ালা ও প্রভাবশালী হওয়ায় কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পাইনাই।কিন্তু বর্তমানে মরিচ্যা  পাগলির বিল সড়কটি ইট ভাটার ভারী ট্রাক, ঢাম্পার চলাচলের কারণে  রাস্তায় বিছানো ইট গুলো প্রায় ভেংগে গিয়ে ব্যাপক খানাখন্দকের
সৃষ্টি হয়েছে এবং রাস্তার দু পাশ্ব দিন দিন ভেঙ্গে যাচ্ছে। এবং পরিবেশের মারাত্বক ক্ষতি হচ্ছে । পাগলির বিল সড়ক দিয়ে যান চলাচল প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়েছে।এ ছাড়া ইট ভাটার  উৎকট গন্ধে এলাকার বাতাস, পরিবেশ ভারী হয়ে উঠেছে। এমন দূষিত বাতাসের ফলে  কি ধরণের রোগব্যাধী  হতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে ককসবাজারের বেশ কয়েকজন মেডিসিন বিশেষঞ জানান, এ্যজমা, শ্বাসকষ্ট,ফুসফুস ক্যান্সারসহ বিভিন্ন মারাতœক েেরাগব্যাধী হতে পারে বিশেষকরে ইটভাটার পাশ্ববর্তী থাকা শিশুও বৃদ্ধরা খুবই ঝুকিপুর্ণ ।স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ সাইফুল¬াহ সিকদার  সাইফুল মেম্বার, সমাজ সেবক ককসবাজার আইনজীবি সহকারী সমিতির সাবেক  সভাপ্রতি মুন্স্ িমাহমুদুল হক চেীং, হাজী আবুল কাসেম,ছাত্রনেতা আবছার উদ্দিন শাšতসহ  স্থানীয়দের সবাই অকপটে এই প্রতিবেদকের কাছে ইট ভাটার কারণে এলাকার পরিবেশ বিনষ্ট,রাস্তার বেহাল দশা, রাত দিন মাঠির টপ সয়েল বিক্রির কারণে ক্ষতির কথা স্বীকার করেন।বিশেষ করে এ বছর আম গাছে যতেষ্ট মুকুল আসলেও আম ধরেছে (ফলন) খুবই কম যার একমাত্র কারণ ইট ভাটার দূষিত বাতাস বলে মনে করছেন পরিবেশবাদী লোকজন।পাগলিরবিল কৃষি নির্ভর এলাকা হওয়ায় এ এলাকায় সরকার ৪-৫ কোঠি টাকা ব্যয়ে রাবারড্যাম নির্মাণ করেছে অথচ আগামী কয়েক বছরের মধ্যে কৃষি আবাদযোগ্য জমি আশংকাজনক হারে কমে যাচ্ছে এ ছাড়া মাঠির টপসয়েল বিক্রির ফলে মাঠির উর্বরতা কমে গিয়ে  ধানের ফলন কম হবে বলে মনে করছেন কৃষিবিদরা ।ইট ভাটার ভারী যান চলাচলের ফলে   মরিচ্যা পাগলির বিল সড়কটি যানচলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। পুর্ব পাগলির বিলের নুরু ড্রাইভারদের বিশাল ইট ভাটাটির চারপাশে কৃষি জমি ও ঘরবাড়ি থাকাসহ ইটভাটা স্থাপন নীতিমালা  পরিপন্থি হলেও এই ইটভাটার ব্যাপারে পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হলেও প্রভাবশালী ইটভাটা মালিকের বিরোদ্ধে কোন ধরনের প্রশাসনিক ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নিই।লোকমুখে শোনাযায় মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে সংশ্লিদের ম্যনেজ করা হয় ।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।