২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১৯ মাঘ, ১৪২৯ | ১০ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

দীর্ঘবছর ধরে গ্রামাঞ্চলে শিকড় গজাচ্ছে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠি

images

কক্সবাজার সদর উপজেলার বৃহত্তর ঈদগাঁও ও রামু উপজেলার পাহাড়ী জনপদ ঈদগড় এলাকায় দীর্ঘবছর ধরে সরকারী খাস জমি দখল করে দিনের পর দিন, মাসের পর মাস ও বছরের পর বছর বাড়ীঘর নির্মাণের মাধ্যমে বসবাস করে যাচ্ছে নাফ নদীর ওপার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী। এ বিষয়ে দেখার কেউ না থাকায় তাদের উৎপাত দিন দিন চরম আকার ধারণ করছে। পৃথিবীর প্রত্যেক দেশে অবৈধ অনুপ্রবেশ রোধ করার জন্য সীমান্ত প্রহরী থাকে। এদেশে সীমান্ত প্রহরী থাকলেও বর্মী রোহিঙ্গারা নানা কৌশল অবলম্বন করে এদেশে (বাংলাদেশ) অবৈধ অনুপ্রবেশ করে বংশ বিস্তারের শিকড় গেঁড়েছে একের পর এক। তারা এদেশে শুধু ডালপালা বিস্তার করে ক্লান্ত হয়নি, সারা দেশে ছড়িয়ে দিয়েছে নানা প্রকার অপরাধ প্রবণতা। সচেতন মহলের অভিমত- আজ দেশের শান্তিপুর্ণ পরিবেশ ধ্বংসের পথে ধাবিত হওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে রোহিঙ্গা। এদেশে অবৈধ অনুপ্রবেশ করে হরেক রকমের অপরাধে জড়িত রয়েছে এরা। অপর দিকে এসব অপরাধ অপকর্ম করে সুযোগ বুঝে নির্বিঘেœ নিজ দেশে পালিয়ে যায়। এরই প্রভাব পর্যটন শহর কক্সবাজারের বৃহত্তর ঈদগাঁও ও রামুর ঈদগড়ের বিশাল এলাকায় ভাইরাস আকারে ঢুকে পড়েছে। এরই অংশ হিসাবে ছয় ইউনিয়নের বৃহত্তর ঈদগাঁও ও রামু উপজেলার পাহাড়ী অঞ্চল ঈদগড়ের বিভিন্ন গ্রামাঞ্চলে বিপুল সংখ্যক রোহিঙ্গা বাস করছে দাপটের সাথে। সংখ্যা গরিষ্ট বার্মাইয়া পরিবার যেসব এলাকায় বংশবিস্তার করছে, তন্মধ্যে ঈদগাঁও উত্তর শিয়াপাড়া, কোনা পাড়া, দরগাহপাড়া, ভাদিতলা, হাসিনা পাহাড়, মেহেরঘোনা, ইসলামাবাদের আওলিয়াবাদ, করাচি পাহাড়, বার্মাইয়া পাড়া, পূর্ব হাজী পাড়া, গজালিয়া এবং ইসলামপুরের পূর্ব নাপিতখালী, নতুন অফিস, বাঁশকাটা, জঙলাকাটা, হ্নীলাপাড়া, ভিলেজার পাড়া, বামন কাটা, পোকখালীর গোমাতলী ও রিফুজিঘোনা, চৌফলদন্ডীর খামার পাড়া, পশ্চিম পাড়া ও বাজারের আশেপাশের এলাকা। তাছাড়া ঈদগাঁও কলেজ গেইট সংলগ্ন কলোনীতে রোহিঙ্গাদের টাল রয়েছে। অন্যদিকে রামুর ঈদগড় ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে-গঞ্জে সর্বত্র ছড়িয়ে ছিটিয়ে সংখ্যা গরিষ্ট বার্মাইয়া পরিবার অবস্থান করছে বলে সচেতন মহলের জরীপ সূত্রে জানা যায়। অপর দিকে বৃহত্তর ঈদগাঁও ও ঈদগড়ের বিভিন্ন এলাকায় বহু মায়ানমার নাগরিক ভোটার হওয়ার অভিযোগ উঠেছে সচেতন জনতার পক্ষ থেকে। এসব ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযান পরিচালনার জোর দাবী জানিয়েছেন এলাকার সুধীমহল।

ফাইল ছবি

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।