১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১৮ মাঘ, ১৪২৯ | ৯ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ   ●  সেন্টমার্টিনে রিসোর্ট নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ দিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর

দক্ষিণ পাহাড়তলী নতুন বাজার দোকান মালিক সমিতির নির্বাচিতদের শপথ সম্পন্ন

Natun Bazarকক্সবাজার শহরের দক্ষিণ পাহাড়তলী নতুন বাজার দোকান মালিক সমিতির নির্বাচন ২০১৫এর নবনির্বাচিত কার্যকরি কমিটির শপথ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। ৬ মার্চ শুক্রবার সমিতির অস্থায়ী কার্যালয়ে এ শপথ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সমিতির অন্যতম সদস্য মুরুব্বি আবুল কালাম মুন্সির সভাপতিত্বে ও ছুরুত আলমের পরিচালনায় শপথ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে শপথ বাক্য পাঠ করান কক্সবাজার পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড এর দুই দুই বার নির্বাচিত কাউন্সিলর আশরাফুল হুদা ছিদ্দিকী জামশেদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- কক্সবাজার পৌরসভার ৭,৮,৯নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর মনজুমন নাহার মঞ্জু, বৃহত্তর পাহাড়তলী সমিতির সাবেক সভাপতি নাছির উদ্দিন, তরুণ সমাজ সেবক ছাবের আহমদ, স্থানীয় মুরুব্বি কাজী আজিজুল হক। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন- সমিতির সাবেক সভাপতি সালাম সওদাগর, স্থানীয় সমাজ সেবক জাহাঙ্গীর আলমসহ প্রমুখ। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে, সমিতির নির্বাচিত সকল সদস্যকে সৎ ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করার জন্য আহবান জানান। এছাড়া স্থানীয় চাঁদাবাজ, ছিনতাইকারি ও সন্ত্রাসিদের বিরুদ্ধে সমিতির নেতৃত্বে স্থানীয়দের সোচ্চার হওয়ার জন্য তিনি অনুরোধ করেন। এছাড়া জয়-পরাজয় ভুলে গিয়ে সকলকে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সমিতির সফলতার জন্য কাজ করতে বলেন।

উল্লেখ্য, ২৮ ফেব্রুয়ারি দক্ষিণ পাহাড়তলী নতুন বাজার মালিক সমিতির বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ১৩ সদস্যের কার্যকরি পরিষদে শুধুমাত্র ৪টি পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত নির্বাচনে সভাপতি পদে ৩জন, সহ-সভাপতি পদে ২জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ২জন ও কোষাধ্যক্ষ পদে ২জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তাঁর মধ্যে ৫০ ভোট পেয়ে জাফর আলম সওদাগর নির্বাচিত হন। অন্যান্যদের প্রাপ্ত ভোট মাওলানা আনোয়ার ১৭ ও তাজুল ইসলাম পুতু ৫ ভোট পান। সহ-সভাপতি পদে ৪৬ ভোট পেয়ে আব্দুল করিম নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কুরবান আলী ২৭ ভোট পান। সাধারণ সম্পাদক পদে গ্রাম্য ডাক্তার নুরুল হাসান ৪০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আতিকুর রহমান ৩২ ভোট পান। কোষাধ্যক্ষ পদে ৪২ ভোট পেয়ে গ্রাম্য ডাক্তার দিন মোহাম্মদ ফরাজি নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী লুৎফুর রহমান ২৯ ভোট পান। নির্বাচনে কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন প্রধান উপদেষ্টা আশরাফুল হুদা ছিদ্দিকী জামশেদ, মঞ্জুমুন নাহার, শামসুল আলম ও মোহাম্মদ কাছিম সর্দার।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।