২০ জুন, ২০২৪ | ৬ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৩ জিলহজ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  পাহাড় ধ্বসঃ ৮ রোহিঙ্গাসহ নিহত ১০   ●  উখিয়ার ক্যাম্পে পৃথক পাহাড় ধ্বসে ৭ রোহিঙ্গা সহ নিহত ৯   ●  রামুতে ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা   ●  উখিয়া-টেকনাফের ৫ শতাধিক তরুন-তরুণীকে কারিগরি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘সুশীলন’   ●  খাদ্যে ভেজাল রোধে সামাজিক আন্দোলন দরকার : খাদ্যমন্ত্রী   ●  ইজিবাইকের ছাদে তুলে ৮ বছরের শিশু নির্যাতন ভিডিও ভাইরাল: তিন অভিযুক্ত গ্রেপ্তার   ●  ভবিষ্যতে প্রেস কাউন্সিলের সার্টিফিকেট ছাড়া সাংবাদিকতা করা যাবে না   ●  একমাসেও অধরা ঘাতক চক্র, চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে পরিবারে হতাশ   ●  সমুদ্রকেই ঘিরে কক্সবাজারের অর্থনীতি   ●  সামাজিক কাজে বিশেষ অবদানের জন্য হাসিঘর ফাউন্ডেশনকে সম্মাননা স্মারক প্রদান

তলাবিহীন ঝুড়ি থেকে স্মার্ট বাংলাদেশ করেছেন শেখ হাসিনা: কউক চেয়ারম্যান

কক্সবাজারকে উন্নতশীল বিশ্বমানের পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলার বিষয়ে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কউক) এবং অ্যাকশন এইড বাংলাদেশ এর মতবিনিময় সভা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় কউকের মাল্টিপারপাস হল রুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
কউক চেয়ারম্যান কমডোর মোহাম্মদ নুরুল আবছারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, অ্যাকশন এইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির।
এসময় কক্সবাজার জেলার সার্বিক উন্নয়ন,  সুনীল অর্থনীতি, ইকো ট্যুরিজ্যম, স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্লান্ট, বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ সম্পন্ন হওয়া প্রকল্প, চলমান প্রকল্প এবং হাতে নেয়া বিভিন্ন পরিকল্পনা ও প্রকল্প নিয়ে আলোকপাত করা হয়।
কউক চেয়ারম্যান কমডোর মোহাম্মদ নুরুল আবছার বলেন, ‘এদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি থেকে স্মার্ট বাংলাদেশে রূপান্তর করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কক্সবাজারকে একটি আধুনিক শহর হিসেবে গড়ে তোলার জন্য প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিক প্রচেষ্টায় মহাপরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে কক্সবাজারে বড় বড় প্রকল্পের কাজ শেষ হয়েছে। তন্মধ্যে হলিডে মোড় থেকে বাসটার্মিনাল বৃহত্তর সড়ক, শহরের বিভিন্ন মোড়ে মনোরম ভাস্কর্য, বিমানবন্দর সম্প্রসারণ, খুরুশকুল আশ্রয়ন প্রকল্পসহ ব্যাপক অবকাঠামোগত উন্নয়ন সম্পন্ন হয়েছে।
এছাড়াও নাফ ট্যুরিজম পার্ক, সাবরাং ট্যুরিজম পার্ক, দোহাজারি থেকে ঘুমধুম রেল লাইনের মতো অভাবনীয় কর্মযজ্ঞ  চলমান রয়েছে। অ্যাকশন এইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবির বলেন, ‘একজন বাংলাদেশী হিসেবে বিভিন্ন দেশে প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ হয়েছে আমার। এদেশের নাগরিক হিসেবে আমি গর্ব করতে পারি আমাদের সহযোগিতা এবং সহমর্মিতার সামর্থ্য রয়েছে। এর উদাহারণ হিসেবে রোহিঙ্গা সংকটের কথা বলতে পারি। এতো বড় জনগোষ্ঠীকে সহযোগিতা করে বিশ্বে দৃষ্টান্ত রেখেছে বাংলাদেশ।’
তিনি আরও বলেন, ‘কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মহাপরিকল্পনার কর্মযজ্ঞগুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং ভালো লাগার মতো। কউকের উদ্যোগে এই জেলাকে স্বপ্নের মতো সুন্দর করার পরিকল্পনাকে আমি স্বাগতম জানাই। একই সাথে সচেতনতার সঙ্গে এসব সম্পদ ব্যবহারের আহ্বান জানাই। সবমিলিয়ে উন্নয়নের সঙ্গে দেশ এগিয়ে যাক এটাই প্রত্যাশা।’
এ সময় কউক এর সদস্য (প্রকৌশল) লে. কর্নেল তাহসিন বিন আলম, কউক সচিব আবুল হাসেম, সাবেক সদস্য লে. কর্নেল মো. খিজির খানসহ কউক কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।