১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১৮ মাঘ, ১৪২৯ | ৯ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ   ●  সেন্টমার্টিনে রিসোর্ট নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ দিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর

জেলাব্যাপী কদর বাড়ছে শান্তির প্রতীক হাতপাখার!

ha
বসন্তের গরমের ছোঁয়ায় জেলাজুড়ে ব্যাপক আকারে কদর বাড়ছে দিন দিন শাস্তির প্রতীক হাতপাখার। গরম আর লোডশেডিং মিলে দুর্বিষহ পরিস্থিতিতে একটু শান্তি দেয় হাতপাখা। আর জেলার বিভিন্ন উপজেলায় হাত পাখার চাহিদা বর্তমান সময়ে বাড়ছে। জানা যায়, জেলার আট উপজেলা তথা পেকুয়া, চকরিয়া, মহেশখালী, কুতুবদিয়া, উখিয়া, টেকনাফ, রামু ও কক্সবাজার সদরের প্রত্যন্ত গ্রামগঞ্জে সব বয়সী নারী পুরুষদের মাঝে হাতপাখার কদর দ্বিগুন আকারে বেড়েই চলছে চলতি সময়ে। জেলার বিভিন্ন উপজেলার নানা স্থানে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী তালপাতার পাখা তৈরী করছে বলেও জানা যায়। ঐসব গ্রামে হাত পাখার শিল্পীরা দীর্ঘদিন ধরে এই তালপাতার হাত পাখা তৈরীর পাশাপাশি কাপড়ের পাখা তৈরি করে জীবিকা নির্বাহ করে চলছে বলেও একাধিক সূত্রে প্রকাশ। আবার নানা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামাঞ্চলের মেয়েরা বাড়ীর আঙ্গিনায় বসে বসে দল বেঁধে হরেক রকম কাপড়ের উপর নকশা করে নকশীকাঁথার হাতপাখা তৈরী করে সদরের ঐতিহ্যবাহী ঈদগাঁও বাজার সহ জেলার বিভিন্ন হাট বাজারে বিক্রি করতে দেখা যায়। তবে হাতপাখার সাইজ অনুসারে দাম নিচ্ছে বিক্রেতারা। একাধিক নক্শীকাথার তৈরী করা হাতপাখার শিল্পিদের মতে, পৃষ্ঠপোষকতা পেলেই দেশে অর্থনীতিতে এই শিল্পের চাহিদা বাড়বে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।