১ জুন, ২০২৩ | ১৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ | ১১ জিলকদ, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  বিদগ্ধজনদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্য থেকে প্রতিপক্ষকে বিরত থাকার আহবান মেয়র প্রার্থী মাহাবুবের   ●  কক্সবাজার পৌরসভার উদ্যোগে বিশ্ব তামাকমুক্ত দিবস উদযাপন   ●  কক্সবাজারে ওয়ার্ল্ডফিশ এর সিনার্জিস্টিক পার্টনারশীপ কর্মশালা   ●  সাগরে ইঞ্জিল বিকল হয়ে ১৩ দিন ভাসতে থাকা ২১ জেলে জীবিত উদ্ধার   ●  চকরিয়া ও টেকনাফে শীঘ্রই চালু হচ্ছে কউকের জোনাল অফিস   ●  মরিচ্যায় ভয়ংকর অপহরণকারী সিন্ডিকেট শীর্ষক সংবাদের নিন্দা ও প্রতিবাদ   ●  পেশীশক্তির প্রদর্শন ও হুমকি দিয়ে নৌকা বিজয় ঠেকানোর চেষ্টা বোকামী : মেয়র প্রার্থী মাহাবুব   ●  র‍্যাবের জালে ধরা পড়ল ৯ লাখ ইয়াবাসহ ৫ মাদক কারবারি: যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার   ●  ছেলের লাঠির আঘাতে প্রাণ গেল বাবার   ●  হাফেজখানা ও এতিমখানার ৮৮ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কক্সবাজার জেলা শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন

জাতীয়তাবাদীsd25-640x394 ছাত্রদল কক্সবাজার জেলা শাখার পূর্ণাঙ্গ কমিটির অনুমোদন নিয়ে কক্সবাজার ফিরে মোটর শোভাযাত্রায় সংবর্ধিত হয়েছেন জেলা সভাপতি রাশেদুল হক রাসেল ও সাধারণ সম্পাদক মনির উদ্দিন মনির।

কক্সবাজার জেলার প্রবেশপথ আজিজনগর থেকে শুরু করে কক্সবাজার জেলা শহর পর্যন্ত পুরো রাজপথে ফুলেল শুভেচ্ছায় ভরিয়ে দিয়েছেন উপজেলা, পৌরসভা, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, ইউনিয়নসহ সবধরণের ইউনিট কমিটির নেতা-কর্মীরা।

বিশাল গাড়ির বহর নিয়ে নেতা-কর্মীরা জেলা ছাত্রদলের সর্বোচ্চ এই দুইনেতাকে বরণ করেন। নেতা-কর্মীরা তাদের প্রিয় দুই নেতাকে খোলা জীপে তুলে কক্সবাজার শহর ও শহরতলীর অলিগলি ঘুরে ঘুরে নিজেদের আনন্দ-উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, চকরিয়ার আজিজনগর থেকে জেলা ছাত্রদলের দুই নেতাকে ফুল দিয়ে বরণ করা হলেও সহাসড়কের প্রায় প্রতিটি ষ্টেশনেই ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। প্রতিটি স্টেশন থেকেই গাড়ির বহর যুক্ত হয়ে কক্সবাজার শহরে এসে এই বহর বিশাল আকার নেয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, পাঁচ শতাধিক মোটর সাইকেল, নোহা, মাইক্রোবাস ও জীপের বহর নিয়ে জেলা ছাত্রদল সভাপতি রাশেদুল হক রাসেল ও সাধারণ সম্পাদক মনির উদ্দিন মনির কক্সবাজার শহরের প্রায় প্রতিটি সড়ক ও অলিগলি ঘুরে আসেন।

ওই সময় পুরো শহরে যেন এক উৎসবের আমেজ তৈরি হয়। রাস্তার দুইপাশে দাঁড়িয়ে সাধারণ মানুষও এই মোটর শোভাযাত্রার আনন্দ উৎসব উপভোগ করেন।

সূত্র মতে, দুই নেতা আজিজনগর থেকে গাড়িবহর নিয়ে চকরিয়ায় পৌছালে চকরিয়া উপজেলা ছাত্রদল, পেকুয়া উপজেলা, চকরিয়া পৌরসভা, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা, চকরিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ এবং সংশ্লিষ্ট এলাকার ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড কমিটির নেতা-কর্মীরা তাদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

ওখান থেকে মোটরযাত্রাটি কক্সবাজারের দিকে রওয়ানা দেয়। পথে মহাসড়কের চকরিয়া থানা রাস্তার মাথায় মহেশখালী উপজেলা, কুতুবদিয়া উপজেলা শাখা ও মহেশখালী পৌরসভা শাখা, ডুলাহাজারা স্টেশনে ডুলাহাজারা কলেজ শাখা, ঈদগাঁও স্টেশনে ঈদগাঁও সাংগঠনিক উপজেলা, ঈদগাঁও ফরিদ আহমদ ডিগ্রী কলেজ শাখা, রামু চৌমুহনীতে রামু উপজেলা ও রামু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা, বাংলাবাজার এলাকায় সদর উপজেলা শাখা, লিংকরোডে টেকনাফ উপজেলা, টেকনাফ পৌরসভা ও টেকনাফ কলেজ শাখা, কক্সবাজার কলেজ গেইটের সামনে কক্সবাজার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা, সদর উপজেলার হাজী আশরাফ আলী ফিলিং স্টেশনের সামনে উখিয়া উপজেলা ও উখিয়া কলেজ শাখা, নবনির্মিতব্য মেডিকেল কলেজের সামনে কক্সবাজার আইন কলেজ, কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ও কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ শাখা এবং কক্সবাজার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে কক্সবাজার শহর ছাত্রদল ও বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিটের নেতা-কর্মীদের বিশাল বহর এই দুই নেতাকে ফুল দিয়ে বরণ করেন।

এছাড়াও কক্সবাজার সিটি কলেজের সামনে সিটি কলেজ শাখার নেতা-কর্মীরা তাদের অভিনন্দিত করেন। ইতিপূর্বে রামুর চৌমুহনীতে ছাত্রদল নেতা-কর্মীরা মিষ্টি বিতরণ করে তাদের উচ্ছাসের প্রকাশ দেখান।

পরে ওই শোভাযাত্রা শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়। শহীদ মিনারে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দিনের উৎসব শেষ করার আগে জেলা বিএনপি কার্যালয়ে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সভাপতি রাশেদুল হক রাসেল ও সাধারণ সম্পাদক মনির উদ্দিন মনির নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন।

ওই সময় দুই নেতা নেতা-কর্মীদের যে কোন পরিস্থিতিতে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানান। তারা মনে করেন, নতুন কমিটিতে যথাসম্ভব যোগ্য ছাত্রনেতাদের স্থান দেয়া হয়েছে। যারা জেলা কমিটিতে স্থান পেয়েছেন তাদের তারা অভিনন্দন জানান। আর যারা স্থান পাননি তাদের আগামি দিনের নেতৃত্বের জন্য অপেক্ষা থাকার আহবান জানান।

দুই নেতা বলেন, ‘যে কোন বড় সংগঠনের সকল নেতা-কর্মীই চায় কমিটিতে স্থান পেতে। কিন্তু সবাইকে স্থান দেয়া কখনোই সম্ভব হয় না। তাই কখনো কখনো বিরোধ তৈরি হয়। কিন্তু আমরা সেই ধরণের বিরোধীয় সংগঠনের নেতা-কর্মী নই। আমরা শহীদ জিয়াউর রহমানের আদর্শের সৈনিক। আমরা সবসময় একসাথে একই মায়ের পেটের ভাইয়ের মতোই রাজনীতি করি।’

তারা এই শোভাযাত্রা আয়োজনের জন্য যারা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন, ভালোবাসা দেখিয়েছেন তাদের সকলের প্রতিই কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

শহীদ মিনারে দেশের বীর সন্তানদের উদ্দেশ্যে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানোর সময় শত শত ছাত্রদল নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি কক্সবাজার পৌর বিএনপির সভাপতি রফিকুল হুদা চৌধুরী ও যুবদলের কেন্দ্রীয় সদস্য পৌর কাউন্সিলর আশরাফুল হুদা সিদ্দিকী জামশেদও উপস্থিত ছিলেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।