২২ মে, ২০২৪ | ৮ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ | ১৩ জিলকদ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলার প্রথম নির্বাচনে সহিংসতায় যুবক খুন; বসতবাড়ি ভাংচুরের অভিযোগ    ●  এভারকেয়ার হসপিটালের শিশু হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. তাহেরা নাজরীন এখন কক্সবাজারে   ●  কালেক্টরেট চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতির সভাপতি আব্দুল হক, সম্পাদক নাজমুল   ●  ক্যাম্পের বাইরে সেমিনারে অংশ নিয়ে আটক ৩২ রোহিঙ্গা   ●  চেয়ারম্যান প্রার্থী সামসুল আলমের অভিযোগ;  ‘আমার কর্মীদের হুমকি-ধমকি দেয়া হচ্ছে’   ●  নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সবকিছু কঠোর থাকবে, অনিয়ম হলেই ৯৯৯ অভিযোগ করা যাবে   ●  উখিয়া -টেকনাফে শাসরুদ্ধকর অভিযানঃ  জি থ্রি রাইফেল, শুটারগান ও গুলিসহ গ্রেপ্তার ৫   ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হেড মাঝিকে  তুলে নিয়ে   গুলি করে হত্যা   ●  যুগান্তর কক্সবাজার প্রতিনিধি জসিমের পিতৃবিয়োগ   ●  জোয়ারিয়ানালায় কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় আহত রামু কলেজের অফিস সহায়ক

চাকমারকুলে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, আহত-১০

20150402_202142.psd

রামুর উপজেলার চাকমারকুল ইউনিয়নের শ্রীমুরা এলাকায় ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় ১০ খেলোয়াড় ও গ্রামবাসী আহত হয়েছে। আহতদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে তিন জনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।
তৎমধ্যে এক জনকে আশংকাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও অভিযোগে প্রকাশ, শ্রীমুরা ফুটবল একাদশ ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করে। গতকাল বৃহস্পতিবার শ্রীমুরা ফুটবল একাদশ বনাম খরুলিয়া ঘাটপাড়া ফুটবল একাদশের মধ্যে ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলার শেষে ১ গোলে শ্রীমুরা ফুটবল একাদশ হেরে গেলে ওই এলাকার কিছু চিহ্নিত সন্ত্রাসী রেজাউল করিম খোকন ও শহিদুল্লার নেতৃত্বে ৩০/৩৫ জন যুবক খরুরিয়া ঘাট পাড়া ফুটবল একাদশের উপর হামলে পড়ে। ওই সময় সন্ত্রাসীদের হামলায় আহতরা হলেন, আরমান (২২), আলমগীর (২২), নুরুল আবছার কাজল (২৪), জকরিয়া (৩২) বেদারুল আলম (৩২), ফরিদুল আলম (৩২) হামিদ (২২), মোর্শেদ (১৬), মিজানুর রহমান (২৬) ও শহিদুল্লাহ, (১৮)।
এদের মধ্যে, নুরুল আবছার কাজল (২৪), আলমগীর ও আরমানের অবস্থা আশংকাজনক।
ভুক্তভোগিরা আরও জানিয়েছেন, ওই সময় সন্ত্রাসীরা তাদের উপর হামলার পাশাপাশি তাদের কাছ থেকে নগদ টাকা, মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়।
খরুলিয়া ইউপি সদস্য আবদুর রশিদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ঘটনাস্থ লে তিনি নিজেই ছিলেন। ওই সময় হামলার ঘটনার প্রতিবাদ করলে সন্ত্রাসী তার উপর হামলার চেষ্টা চালায়। ওই সময় চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান মফিদুল আলম ঘটনাস্থলে থাকলেও তিনি নিরব দর্শকের ভূমিকায় ছিলেন বলে মেম্বার আবদুর রশিদ দাবী করেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।