৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ১৫ আশ্বিন, ১৪২৯ | ৩ রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  কক্সবাজারে ১৮ পূজা মণ্ডপ ঝুঁকিপূর্ণ   ●  পর্যটন নগরী কক্সবাজারকে প্রকৃতিবান্ধব পর্যটনে রূপ দিতে হবে- এমপি জাফর   ●  সংগঠনকে সুসংহত করতে ইখলাসপূর্ণ তৎপরতা চালিয়ে যেতে হবে   ●  পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নজিবুল ইসলামের উদ্যোগে বর্ণিল ‘শারদ সন্ধ্যা’র আয়োজন   ●  মেয়র এলায়েন্স ফর হেলদী সিটি’র নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানকে পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের সংবর্ধনা   ●  জেলা পরিষদ নির্বাচনে শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করবে আওয়ামীলীগ   ●  দেড় শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ, ক্ষতির দাবি ৫ কোটি টাকার   ●  রুমখাঁ মাদ্রাসার অভিভাবক সদস্য পদে সকলের দোয়া চেয়েছেন ছলিম উল্লাহ বাহাদুর   ●  সাবেক এমপি এড. খালেকুজ্জামান ছিলেন দল মত নির্বিশেষে সকলের কাছে জনপ্রিয় নেতা   ●  বাংলাদেশের মানুষ বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি দেখতে পায় শেখ হাসিনার মধ্যে- এমপি জাফর

চট্টগ্রাম নগরে ৫-১১ বছরের শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা প্রদান কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন স্বাস্থ্য পরিচালক

বিশেষ প্রতিবেদক:

চট্টগ্রাম মহানগরে চলমান ১১ বছর বয়সী (১২ বছরের কম বয়সী) শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা প্রদান কার্যক্রম পরিদর্শনকরেছেন ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্ল্যাহ। আজ ২৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা থেকেস্বাস্থ্য পরিচালকের নেতৃত্বে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা নগরীর চিটাগাং গ্রামার স্কুলসহ বিভিন্ন স্কুলে টিকাদান কার্যক্রম তদারকিকরেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদওয়াজেদ চৌধুরী অভি, এমওডিসি ডা. মোহাম্মদ নুরুল হায়দার, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এসআইএমও ডা. এফ এম জাহিদুল ইসলাম, জেলা স্বাস্থ্য তত্ত¡াবধায়ক সুজন বড়য়া, হেলথ এডুকেটর কাজী মাসুদ, পিএটু ডিরেক্টর শাহাদাত হোসেন প্রমূখ।

জেলা সিভিল সার্জন সূত্র জানায়, মহানগরী এলাকায় ১১ বছর বয়সী লাখ ৪৭ হাজার ১৯২ জন শিক্ষার্থীকে ফাইজারেরটিকা দেয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। তন্মধ্যে ছাত্র লাখ ৬৪ হাজার ৯৩৫ জন ছাত্রী লাখ ৮২ হাজার ২৫৭ জন।মহানগরীর বাইরে জেলার ১৫ উপজেলায় ১১ বছর বয়সী লাখ ৯৮ হাজার ১৩২ জন শিক্ষার্থীকে ফাইজারের টিকা দেয়ারলক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। তন্মধ্যে ছাত্র লাখ ৪৩ হাজার ৮৯৭ জন ছাত্রী লাখ ৫৪ হাজার ১৯৭ জন।

উপজেলা পর্যায়ে অচিরেই কার্যক্রম শুরু করা হবে বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী। নগরী জেলায় ১১ বছর বয়সী সকল শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা প্রদান কার্যক্রমে কারিগরি সহযোগিতাসহ যাবতীয় প্রস্তুতি ইতোমধ্যেসম্পন্ন করেছে সিভিল সার্জন কার্যালয়।

ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মোঃ সাখাওয়াত উল্ল্যাহ বলেন, শুধু শিক্ষার্থী নয়, সবাইকে সুরক্ষিত থাকতে হবে।ভ্যাকসিন দেয়া থাকলে করোনার ঝুঁকি অনেকটা কম। করোনা থেকে রক্ষা পেতে হলে পর্যায়ক্রমে শিক্ষার্থীরাসহ সবাইকে কোভিডভ্যাকসিনের আওতায় আসতে হবে। নিজে ভ্যাকসিন নিয়ে অন্যকে ভ্যাকসিন নিতে উৎসাহিত করার পাশাপাশি মাস্ক পরিধানকরতে হবে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।