৩০ জানুয়ারি, ২০২৩ | ১৬ মাঘ, ১৪২৯ | ৭ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ   ●  সেন্টমার্টিনে রিসোর্ট নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ দিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর   ●  তত্ত্বাবধায়কের কাছে ভুক্তভোগীর আবেদন চিকিৎসার জন্য টাকা দাবি করলো নার্স, হুমকির অভিযোগ   ●  ডিজিটাল আইল্যান্ডকে স্মার্ট আইল্যান্ডে পরিণত করার পেছনের গল্প রচনা করবে ছাত্রলীগ

চকরিয়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে খাল খনন এক হাজার একর জমিতে সেচ সুবিধা নিশ্চিত

chakaria pc 17-3-15
চকরিয়া উপজেলার বরইতলী ইউনিয়নে সেচ সুবিধা সংকটে পড়েছে  কৃষকরা। মাতামুহুরী নদীর মোহনা বরইতলী ইউনিয়নের মোস্তাক মিয়ার ঘাট থেকে পহঁরচাঁদা গোবিন্দপুর দক্ষিনপাড়া ও অপরদিকে খিলছাদক নুর আহমদ সওদাগরকুম পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার আয়তনের খালে পানি প্রবাহ শুকিয়ে যাওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। ফলে এলাকার কৃষকরা চলতি মৌসুমে বোরো ও সবজি চাষ নিয়ে গত দুইমাস ধরে পড়ে যায় চরম বেকায়দায়। খালের এ করুনদশা সরেজমিন পরির্দশন করেন ইউপি চেয়ারম্যান এটিএম জিয়াউদ্দিন চৌধুরী পরিষদের চৌকিদার ও দফাদারদের দিয়ে খবর দেন স্বেচ্ছাশ্রমে খালটি খননে কৃষকসহ সকলস্থরের জনগনকে সম্পৃক্ত হতে। ইউপি চেয়ারম্যানের অনুরোধে মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে দুুপুর একটা পর্যন্ত টানা চারঘন্টা স্বেচ্ছাশ্রমে খাল খননে অংশ এলাকার নানা বয়সের হাজারো মানুষ। খনন শেষ হওয়ার পর পর মাতামুহুরী নদীর মোহনা হয়ে এ খালে ঢুকে পড়ছে মিঠাপানির প্রবাহ। তাৎক্ষনিক চালু করা হয় খালের তীরে বসানো একাধিক সেচ পাম্প (স্কীম)। দীর্ঘদিন পর জমিতে সেচ সুবিধা নিশ্চিত হওয়ায় উপস্থিত কৃষকসহ সকলস্থরের জনগনের মুখে ফুটে উঠে আনন্দের হাসি।
খাল খননকালে ইউপি চেয়ারম্যান এটিএম জিয়াউদ্দিন চৌধুরী ছাড়াও এতে অংশ নেন বরইতলী ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মহিউদ্দিন, আবদুল মান্নান, জাগের হোসেন, ইউপি সদস্য নাছির উদ্দিন, স্কীম ম্যানেজার আবদুস শুক্কুর, সিরাজ উদ্দিন, আমির উদ্দিন, বাহার উদ্দিন, জিয়াউল করিম, সাহাব উদ্দিন, ওসমান গনী, নুরুল ইসলাম, জয়নাল আবেদিন, কবির আহমদ, নাজেম উদ্দিন, আক্কাস আহমদ, আবদুল বারেক, আকতার আহমদ, ইউনিয়ন পরিষদের দফাদার সিকান্দার আহমদ, আবদুল মান্নান ও নাজেম উদ্দিন।
বরইতলী ইউপি চেয়ারম্যান এটিএম জিয়াউদ্দিন চৌধুরী জিয়া বলেন, মাতামুহুরী নদীর মোহনা হয়ে বরইতলী ইউনিয়নের বৃহত্তম এ শাখা খালে জমাট হয় পানি প্রবাহ। স্থানীয় কৃষকরা সেচ পাম্পের সাহায্যে খাল থেকে পানি সংগ্রহ করে জমির সেচ সুবিধা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, বর্ষাকালে খালে পানি প্রবাহ ভরপুর থাকলেও শুস্কমৌসুমে খালটি মরুভুমিতে পরিণত হয়। তাই কৃষক ও কৃষি ব্যবস্থার স্বার্থে জনগনকে সাথে নিয়ে খালের এক কিলোমিটার এলাকা খনন করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, খননের পর খালে পানি প্রবাহ বেড়েছে। ফলে এখন এলাকার প্রায় আড়াই শত হেক্টর বোরো চাষে সেচ সুবিধা নিশ্চিত হয়েছে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।