৭ ডিসেম্বর, ২০২২ | ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ | ১২ জমাদিউল আউয়াল, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  দুপুর গড়াতেই জনসমুদ্রে পরিণত হলো শেখ কামাল স্টেডিয়াম   ●  প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় যোগ দিতে ভোর থেকেই নেতা-কর্মীদের ঢল   ●  সংঘাত নয়, আমরা সমঝোতায় বিশ্বাসী -প্রধানমন্ত্রী   ●  কক্সবাজারে প্রধানমন্ত্রীর সফরঃ এমপি জাফরের চমক   ●  পালংখালীর চেয়ারম্যান গফুর উদ্দিনের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে রাস্তায় নামলো হাজারো নারী-পুরুষ   ●  প্রধানমন্ত্রীর সফর : কক্সবাজারে ৩ লাখ কোটি টাকা উন্নয়নের ভীড়ে আরও ১০ দাবি, আওয়ামীলীগের সংবাদ সম্মেলন সোমবার   ●  চকরিয়ার ১৫ হাজার মানুষ আগেরদিন কক্সবাজার অবস্থান করবে, ৮৪টি হোটেল বুকিং, খাবারের ব্যবস্থাও থাকবে -এমপি জাফর   ●  এনজিওতে ছাঁটাই বন্ধ ও বেতন বৃদ্ধির দাবিতে উখিয়ায় প্রতিবাদ সভা   ●  কক্সবাজার জেলা পরিষদের প্রথম সভা অনুষ্ঠিত   ●  উখিয়ায় পাঁচ কোটি ২০ লাখ টাকা মূল্যের ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার

কস্টের স্মৃতি: বাবা হারানো ছাত্রলীগ নেতা কফিলের কস্টের কথা!

পেকুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ কফিল উদ্দিনের পিতার ২য় তম মৃত্যুবার্ষিকী গত ৫ মে সোমবার। তার পিতার মৃত্যুবার্ষিকীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বাবা হারা কস্ট নিয়ে তার ফেইজবুক স্ট্যাটাস। নিম্নে তা তুলে ধরা হলো-

“বাবা ?

আজ ২টা বছর পার হয়ে গেল৷ পরপারে চলে গেল। আর কোনদিন পাব না বাবাকে ফিরে৷ বাবা বলে ডাকতে পারবো না৷

কত দ্রুত সময়ে চলে গেল বাবা৷ বাবার একটি কথা আজ কানে ভাসছে৷ মৃত্যুর বেশ কয়েক সপ্তাহ আগে আমি আর বড় ভাইকে বলল –

আমার এখন ভয় লাগে রাতে ?৷ মৃত্যুর ভয় ছিল বাবার৷ রাতে হয়তো কত কিছু মাথায় আসতো বাবার৷

আজ বাবা বেঁচে থাকলে চিৎকার দিয়ে বলতাম ” বাবা তোমার ছোট্ট বাহাদুর আরো অনেক বড় হয়ে গেছে৷ শত শত কিলবিল করা শত্রুদের মাঝেও আমি নিজের পায়ে দাঁড়িয়েছি৷”

আমাকে নিয়ে বাবা প্রায় সময় চিন্তা করতেন৷ আজ থাকলে বাবা অনেক খুশি হতো৷ সুখটা হয়তো এরকমই হয়। সুখের সময় আপনজন হারিয়ে যায়৷

বাবা তোমার বিরুদ্ধে আঙুল তুলে কথা বলার মানুষ ছিল না৷ আজও নাই৷ কারণ আপনি এই যুগের জন্য ভিন্ন টাইপের মানুষ ছিলেন৷ ছিল না শত্রু৷ মুখে অলটাইম মিষ্টি হাসি এরপরেও কিছু কীট আছে সমাজে৷ তোমাকে নিয়ে কথা বলে৷ যার কারণ শুধু আমি! আমি রাজনীতি না করতাম তাহলে আপনাকে নিয়ে কথা তারাও বলতো না৷

আমি জানি ছেলে রাজনীতি করলে মা-বাবাকে অনর্থক গালি শুনতে হয়৷ আমি বাবা তোমার জানাযার মাঠে সবাইকে হাতে পায়ে ধরে অনুরোধ করেছিলাম৷ আমি দোষ করলে আমাকে গালি দিবেন , আমার মা-বাবাকে নয়৷

বাবা বেঁচে থাকলে এসব কীটদের জিহ্বা সেলাই করে দিব ইনশাআল্লাহ৷ সব সইতে পারি তোমার নাম খারাপভাবে নিলে একদম সইতে পারি না৷

বাবা তুমি ভাল থেকো৷ বটবৃক্ষ হিসেবে থেকো। আমরা তিন ভাই, দু বোন আমার আদুরে “মা”কে নিয়ে অনেক ভাল আছি৷ তোমার দোয়া আর সবার ভালবাসা নিয়ে সুখে আছি৷

হাতেগোনা কয়েকজন ছাড়া কেউ খারাপ বলেনা বাবা৷ তোমার আদর্শ কসম আল্লাহ প্রতিটি সেকেন্ড মেনে চলি৷

বাবা তোমাকে আল্লাহ বেহেস্ত দান করবে৷ আমার বিশ্বাস৷

ভালবাসি বাবা ???”

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।