১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১৮ মাঘ, ১৪২৯ | ৯ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ   ●  সেন্টমার্টিনে রিসোর্ট নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ দিলেন পরিবেশ অধিদপ্তর

কক্সবাজার শহর জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল

906087_659710360824848_8476039673412517317_o
আওয়ামীলীগ সরকারের পদত্যাগ ও কেয়ারটেকার সরকারের অধীনে অবাধ ও সুষ্ঠ’ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবীতে ২০ দলীয় জোট ঘোষিত, অবরোধ ও চলমান ৭২ ঘন্টা হরতাল কর্মসূচির সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল করে কক্সবাজার শহর জামায়াত।
১৬ মার্চ সোমবার শহর জামায়াত-শিবির নেতৃবৃন্দের নেতৃত্বে মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

মিছিলোত্তর সমাবেশে বক্তাগণ বলেন, জনগণকে ভোটের অধিকার থেকে বঞ্চিত করার ফল ভোগ করে চলেছে অবৈধ আওয়ামী সরকার। বাংলার আপামর জনতা অবৈধ সরকারকে ধিক্কারের সাথে প্রত্যাখ্যান করেছে। এমনকি বহু আওয়ামীপন্থী বুদ্ধিজীবী ও বিশিষ্ট নাগরিক আওয়ামী লীগকে ধিক্কার দিচ্ছে। একইভাবে জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা অবৈধ সরকারকে প্রত্যাখ্যান করে নতুন নির্বাচনের দাবি করে আসছে। দেশ-বিদেশের বিবেকবানরা কেউ ফ্যাসিস্ট সরকারকে মেনে নেয়নি। মূলত এখন অবৈধ সরকার প্রশাসনের শক্তিকে রক্ষিবাহিনীর ভূমিকায় পাশে রাখার চেষ্টা করছে। এখনো যদি তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় না হয়, তাহলে শেষ পর্যন্ত সম্মানজনক ভাবে বিদায়ের পথটাও বন্ধ হয়ে যেতে পারে অবৈধ সরকারের।

বক্তাগন বলেন, বিএনপির যুগ্ম মাহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদের খোঁজ নেই। তাকে উঠিয়ে নিয়ে সরকার এখন অস্বীকার করছে। বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী ও চৌধুরী আলমের মত তাকেও গুম করে, ২০ দলীয় জোটের আন্দোলনকে বন্ধ করতে চায় আওয়ামীলীগ সরকার। গণতন্ত্রের স্বার্থে সবাই মিলে অর্থবহ সংলাপের মাধ্যমে একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের মাধ্যমে মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠার দাবি জানান নেতৃবৃন্দ এবং যতদিন পর্যন্ত গণতন্ত্র, মানবাধিকার, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা না হবে তত দিন এ আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।