২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১৯ মাঘ, ১৪২৯ | ১০ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

কক্সবাজার শহর জামায়াতের বিক্ষোভ মিছিল

11094304_668087593320458_521424885_o
গণহত্যা, গুম, গণগ্রেফতার বন্ধ, ২০দলের মুখপাত্র সালাহ উদ্দিন আহমদের সন্ধান ও মুক্তিদান এবং অবৈধ সরকারের পদত্যাগ, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবীতে জোট ঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে বিক্ষোভ করেছে কক্সবাজার শহর জামায়াত। ২৯ মার্চ রবিবার শহর জামায়াত-শিবির নেতৃবৃন্দের নেতৃত্বে মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে বক্তাগণ বলেন, ফ্যাসিবাদী আওয়ামীলীগ সরকার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে নিশ্চিহ্ন করার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই ২০ দলীয় জোটের নেতা-কর্মীদের পরিকল্পিতভাবে বেছে বেছে হত্যা, গুম ও অপহরণ করছে এবং অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে কারাগারে বন্দী করে রেখেছে। আওয়ামী অবৈধভাবে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই বিরোধী দলের উপর জুলুম-নির্যাতন করে যাচ্ছে। তারা দেশে পুলিশি রাষ্ট্র কায়েম করেছে। সরকার মনে করেছে পুলিশ ও দলীয় সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে এবং রাষ্ট্রীয় শক্তির অপব্যবহার করে গণতন্ত্রের মুক্তির আন্দোলন দমিয়ে দিবে। কিন্তু তাদের এ আশা পূরণ হয়নি বরং বুমেরাং হয়েছে। সরকারের সকল বাধা-নির্যাতন কে চ্যালেঞ্জ করে জনতা রাজপথে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। গনতন্ত্র মুক্ত না হওয়া পর্যন্ত প্রতিরোধ আন্দোলন চলিয়ে যাওয়ার চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে, জোটের নেতা-কর্মীরা রাজপথে নেমে এসেছে। আর তাতেই অবৈধ সরকারের হৃদযে কাঁপুনি ধরে গেছে। জনতার শান্তিপূর্ণ আহ্বানকে দুর্বলতা মনে করেছিল কান্ডজ্ঞানহীণ সরকার। তাই এখন সময় এসেছে, দেশের সর্বস্থরের জনতাকে স্বৈরাচারি আওয়ামীলীগের জুলুম-নির্যাতনের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে হবে। আগামীতে জালিম সরকারের বিরুদ্ধে আরো দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার উদাত্ত আহবান জানান বক্তারা।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।