২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১৯ মাঘ, ১৪২৯ | ১০ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

পুরাতন ভাড়াটিয়াদের চুক্তিমতে দোকান বরাদ্ধের দাবি

কক্সবাজার শহরে দোকান বন্ধ রেখে অবস্থান কর্মসূচি বৃহস্পতিবার

কক্সবাজার প্রতিনিধি:

দীর্ঘ ৩৫ বছরের ভাড়াটিয়াকে নতুন নির্মিত মার্কেটে চুক্তিকৃত দোকান বুধবার সন্ধ্যার মধ্যে বুঝিয়ে দেয়ার দাবি জানিয়েছেকক্সবাজার দোকান মালিক সমিতি ফেডারেশন। মালিক কর্তৃক দায়িত্ব নিয়ে বুধবার সন্ধ্যার মধ্যে পুরাতন ভাড়াটিয়াদের দোকানবরাদ্ধ দেয়া না হলে বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টা পর্যন্ত শহরের সকল দোকান বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে সংগঠনটি। একই সঙ্গেদোকান বন্ধ রাখার সময়ে কক্সবাজার শহরের এন্ডাসন রোডের জলিল মার্কেটের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবেব্যবসায়ীরা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কক্সবাজার দোকান মালিক সমিতি ফেডারেশনের কার্যালয়ে উপদেষ্টা ব্যবসায়ীদের মতবিনিময় সভা সভাশেষে কর্মসূচি ঘোষণা করেন ফেডারেশনের সভাপতি পৌরসভার প্যানেল মেয়র মাহাবুবর রহমান।

সভাপতি বলেন, গত ১৯৮৭ সাল থেকে এডভোকেট আব্দুল জলিলের কাছ থেকে তারা সাতজন ভাড়াটিয়া সালামীর ভিত্তিতেদোকান নেন। তারা মালিকের কাছে নিয়মিত ভাড়া পরিশোধ ব্যবসা করছিলেন। মূল মালিকের মৃত্যুর পর গত ২০১৯ সালে তারছেলে কলিম উল্লাহজলিল টাওয়ারনামে নতুন মার্কেট নির্মাণের কথা বলে পুরাতন ভাড়াটিয়াদের সঙ্গে নতুন সালামী নির্ধারণকরে চুক্তি করেন।

মার্কেটটির নির্মাণকাজ শেষ হলেও দীর্ঘ বছর ধরে মালিক ভাড়াটিয়াদের দোকান বুঝিয়ে না দিয়ে হয়রানি করে আসছেন।এব্যাপারে মালিকের সাথে যোগাযোগ করা হলেও কোন উদ্যোগ না নিয়ে হয়রানী অব্যাহত রাখা হয়েছে। একই সঙ্গে ব্যবসায়ীরাসংবাদ সম্মেলন, অবস্থান কর্মসূচি, প্রশাসনকে অবহিত করলেও কোন কার্যকর উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না। এমন পরিস্থিতিতেদোকান বন্ধ রেখে অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হল। অবস্থান কর্মসূচি থেকে পরবর্তি কর্মসূচি দেয়া হবে।

সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, ফেডারেশনের উপদেষ্টা ফিরোজ আহমদ ওসমানী, শওকত ওসমান পিয়ারো, জসিম উদ্দিন চৌধুরী, লাইব্রেরী সমিতির সভাপতি ওমর ফারুক, ইজি বাইক মার্কেটের সভাপতিরফিকুল ইসলাম, পূরাতন তরকারি শেডের সভাপতি মোহাম্মদ মোস্তফা, বৃহত্তর বার্মিজ মাকের্র্ট সমিতির সভাপতি মুসা কলিমউল্লাহ, কৃষি অফিস সড়কের সভাপতি মোহাম্মদ সোহেল, বেকারি সমিতির সভাপতি নাসির উদ্দিন, হর্কাস মার্কেটের সভাপতিসামির উদ্দিন সুমন, বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ, সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম সোহান সমবায়সুপার মার্কেটের সহ সভাপতি আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।