৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২২ | ১৫ আশ্বিন, ১৪২৯ | ৩ রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  কক্সবাজারে ১৮ পূজা মণ্ডপ ঝুঁকিপূর্ণ   ●  পর্যটন নগরী কক্সবাজারকে প্রকৃতিবান্ধব পর্যটনে রূপ দিতে হবে- এমপি জাফর   ●  সংগঠনকে সুসংহত করতে ইখলাসপূর্ণ তৎপরতা চালিয়ে যেতে হবে   ●  পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নজিবুল ইসলামের উদ্যোগে বর্ণিল ‘শারদ সন্ধ্যা’র আয়োজন   ●  মেয়র এলায়েন্স ফর হেলদী সিটি’র নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানকে পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের সংবর্ধনা   ●  জেলা পরিষদ নির্বাচনে শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থীকে বিজয়ী করতে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করবে আওয়ামীলীগ   ●  দেড় শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উচ্ছেদ, ক্ষতির দাবি ৫ কোটি টাকার   ●  রুমখাঁ মাদ্রাসার অভিভাবক সদস্য পদে সকলের দোয়া চেয়েছেন ছলিম উল্লাহ বাহাদুর   ●  সাবেক এমপি এড. খালেকুজ্জামান ছিলেন দল মত নির্বিশেষে সকলের কাছে জনপ্রিয় নেতা   ●  বাংলাদেশের মানুষ বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি দেখতে পায় শেখ হাসিনার মধ্যে- এমপি জাফর

কক্সবাজারে শ্রীলঙ্কার আবহ এনেছে ‌’সী পার্ল শ্রীলঙ্কান ফুড ফেস্টিভ্যাল’ : শ্রীলঙ্কান হাইকমিশনার


জেলা প্রতিনিধি:
বাংলাদেশে শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনার সুদর্শন দিপাল সুরেশ সিনিভিরাত্নে বলেছেন, বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র শহর কক্সবাজার আমাদের বিমুগ্ধ করেছে। সে সাথে মনোমুগ্ধকর লুকিংয়ে বিশ্বমানের আবাসন সুযোগ এবং কক্সবাজারের সমুদ্রপাড়ে শ্রীলঙ্কান আবহ এনে দিয়েছে সী পার্ল বিচ রিসোর্ট। এখানে বিনোদনের সবধরণের উপলক্ষ্য বিদ্যমান। এটি একটি বিশ্বমানের অর্থনৈতিক জোন হিসেবেও সমৃদ্ধ হবে, এটা আমার বিশ্বাস। এটি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকারের সাথে কাজ করতে আগ্রহী শ্রীলঙ্কা।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় কক্সবাজার সী পার্ল বিচ রিসোর্ট এন্ড স্পাতে ৫দিন ব্যাপী ‘শ্রীলঙ্কান ফুড ফেস্টিভ্যাল’ উদ্বোধন কালে শ্রীলঙ্কান হাইকমিশনার এসব কথা বলেছেন।

হোটেলের কাসবাহ রেঁস্তোরায় সী পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা ও শ্রীলঙ্কার হাইকমিশন যৌথভাবে এ ফেস্টিভ্যাল আয়োজন করেছে। এর এয়ারলাইন পার্টনার নভো এয়ারওয়েজ।

উদ্বোধনীতে সি পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা’র গ্রুপ জেনারেল ম্যানেজার আজীম শাহ, সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) নাভিদ আহসান চৌধুরী, রেস্তোরা ম্যানেজার আশিক আয়ানসহ হোটেলের পদস্থ কর্মকর্তা-কর্মজীবী ও শ্রীলঙ্কান হাইকমিশনারের পরিবারবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এসময় হোটেলের শ্রীলঙ্কান শেফ মিলরয় নানায়াক্কারা অতিথিদের স্টলের খাবারগুলো প্রদর্শন করেন।

আগামী ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত ফুড ফেস্টিভ্যালটি সন্ধ্যা ৭টা হতে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত। যে কেউ চাইলে ৩ হাজার ৯৯৯ টাকায় ব্যুফে ডিনার হিসেবে ফুডটি গ্রহণ করতে পারে। দু’জনের খাবারের দামে তৃতীয় জনের খাবার ফ্রি হিসেবে দেয়ার ঘোষণা রয়েছে আয়োজকদের।

এজিএম নাভিদ আহসান চৌধুরী জানান, ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শন করা শ্রীলঙ্কার খাবার হল স্বাদের দিক থেকে সবচেয়ে বৈচিত্র্যময় রান্নার একটি। শ্রীলঙ্কার খাদ্যের সংস্কৃতি সমৃদ্ধ। সামুদ্রিক খাবার, বিভিন্ন তরকারির সুস্বাদু সংমিশ্রণ ভোজন রসিকদের আনন্দ দিবে। শ্রীলঙ্কার রন্ধনপ্রণালী উপভোগ করাতেই কক্সবাজারের খাদ্য অনুরাগীদের জন্য এ উৎসবটি আয়োজন। খাবারের সুস্বাদু সমন্বয় দুর্দান্ত গ্রীষ্মমন্ডলীয় অভিজ্ঞতা দেয় যা আপনাকে রৌদ্রোজ্জ্বল সৈকত এবং শ্রীলঙ্কার নীল জলের আবহ এনে দিবে।

আয়োজকরা জানান, আন্তর্জাতিক শ্রীলঙ্কান এ্যাক্সিকিউটিভ শেফ মিলরয় নানায়াক্কারা তার দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে শ্রীলঙ্কান স্বাদের খাবারগুলো একত্রিত করে উৎসবের আমেজ এনে দিয়েছেন। কাসবাহ রেস্তোরাঁয় শ্রীলঙ্কান ফুড ফেস্টিভ্যালে পরিবেশিত খাবারের মাঝে অন্যতম হলো, ব্রিন্জেল মোজু, কুট্টু, হপারস, ফ্রন্ট কারি কোকোনাট, ফিশ আম্বুল থিয়াল, হালমানু থেলডালা, ফিশ অ্যাম্বুল থিয়াল (মালু আম্বুল থিয়াল), চিংড়ি কারি, গরুর মাংস মরিচের তরকারিসহ ফেস্টিভ্যালে ৯০-৯৫ রকমের মুখরোচক খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে।

ডেজার্ট আইটেম হিসেবে শ্রীলঙ্কার জনপ্রিয় মিষ্টি খাবার ওয়াটালাপ্পান (গুড়ের পুডিং), শ্রীলঙ্কান প্যানকেক এবং থালা কারালি উৎসবে পরিবেশন করা হচ্ছে। যারা শ্রীলঙ্কার সুস্বাদু খাবারের স্বাদ নিতে আগ্রহী তাদের জন্য ফুড ফেস্টিভ্যাল উন্মুক্ত। যেকেউ চাইলে ০১৮৪৪০১৬০১৬ এ মুঠোফোন নাম্বারে যোগাযোগ করে বুকিং দিয়ে জমকালো বুফেতে অংশ নিতে পারেন।বাংলাদেশে শ্রীলঙ্কার হাইকমিশনার সুদর্শন দিপাল সুরেশ সিনিভিরাত্নে বলেছেন, বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র শহর কক্সবাজার আমাদের বিমুগ্ধ করেছে। সে সাথে মনোমুগ্ধকর লুকিংয়ে বিশ্বমানের আবাসন সুযোগ এবং কক্সবাজারের সমুদ্রপাড়ে শ্রীলঙ্কান আবহ এনে দিয়েছে সী পার্ল বিচ রিসোর্ট। এখানে বিনোদনের সবধরণের উপলক্ষ্য বিদ্যমান। এটি একটি বিশ্বমানের অর্থনৈতিক জোন হিসেবেও সমৃদ্ধ হবে, এটা আমার বিশ্বাস। এটি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকারের সাথে কাজ করতে আগ্রহী শ্রীলঙ্কা।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় কক্সবাজার সী পার্ল বিচ রিসোর্ট এন্ড স্পাতে ৫দিন ব্যাপী ‘শ্রীলঙ্কান ফুড ফেস্টিভ্যাল’ উদ্বোধন কালে শ্রীলঙ্কান হাইকমিশনার এসব কথা বলেছেন।

হোটেলের কাসবাহ রেঁস্তোরায় সী পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা ও শ্রীলঙ্কার হাইকমিশন যৌথভাবে এ ফেস্টিভ্যাল আয়োজন করেছে। এর এয়ারলাইন পার্টনার নভো এয়ারওয়েজ।

উদ্বোধনীতে সি পার্ল বিচ রিসোর্ট অ্যান্ড স্পা’র গ্রুপ জেনারেল ম্যানেজার আজীম শাহ, সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) নাভিদ আহসান চৌধুরী, রেস্তোরা ম্যানেজার আশিক আয়ানসহ হোটেলের পদস্থ কর্মকর্তা-কর্মজীবী ও শ্রীলঙ্কান হাইকমিশনারের পরিবারবর্গ উপস্থিত ছিলেন। এসময় হোটেলের শ্রীলঙ্কান শেফ মিলরয় নানায়াক্কারা অতিথিদের স্টলের খাবারগুলো প্রদর্শন করেন।

আগামী ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত ফুড ফেস্টিভ্যালটি সন্ধ্যা ৭টা হতে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত। যে কেউ চাইলে ৩ হাজার ৯৯৯ টাকায় ব্যুফে ডিনার হিসেবে ফুডটি গ্রহণ করতে পারে। দু’জনের খাবারের দামে তৃতীয় জনের খাবার ফ্রি হিসেবে দেয়ার ঘোষণা রয়েছে আয়োজকদের।

এজিএম নাভিদ আহসান চৌধুরী জানান, ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শন করা শ্রীলঙ্কার খাবার হল স্বাদের দিক থেকে সবচেয়ে বৈচিত্র্যময় রান্নার একটি। শ্রীলঙ্কার খাদ্যের সংস্কৃতি সমৃদ্ধ। সামুদ্রিক খাবার, বিভিন্ন তরকারির সুস্বাদু সংমিশ্রণ ভোজন রসিকদের আনন্দ দিবে। শ্রীলঙ্কার রন্ধনপ্রণালী উপভোগ করাতেই কক্সবাজারের খাদ্য অনুরাগীদের জন্য এ উৎসবটি আয়োজন। খাবারের সুস্বাদু সমন্বয় দুর্দান্ত গ্রীষ্মমন্ডলীয় অভিজ্ঞতা দেয় যা আপনাকে রৌদ্রোজ্জ্বল সৈকত এবং শ্রীলঙ্কার নীল জলের আবহ এনে দিবে।

আয়োজকরা জানান, আন্তর্জাতিক শ্রীলঙ্কান এ্যাক্সিকিউটিভ শেফ মিলরয় নানায়াক্কারা তার দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে শ্রীলঙ্কান স্বাদের খাবারগুলো একত্রিত করে উৎসবের আমেজ এনে দিয়েছেন। কাসবাহ রেস্তোরাঁয় শ্রীলঙ্কান ফুড ফেস্টিভ্যালে পরিবেশিত খাবারের মাঝে অন্যতম হলো, ব্রিন্জেল মোজু, কুট্টু, হপারস, ফ্রন্ট কারি কোকোনাট, ফিশ আম্বুল থিয়াল, হালমানু থেলডালা, ফিশ অ্যাম্বুল থিয়াল (মালু আম্বুল থিয়াল), চিংড়ি কারি, গরুর মাংস মরিচের তরকারিসহ ফেস্টিভ্যালে ৯০-৯৫ রকমের মুখরোচক খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে।

ডেজার্ট আইটেম হিসেবে শ্রীলঙ্কার জনপ্রিয় মিষ্টি খাবার ওয়াটালাপ্পান (গুড়ের পুডিং), শ্রীলঙ্কান প্যানকেক এবং থালা কারালি উৎসবে পরিবেশন করা হচ্ছে। যারা শ্রীলঙ্কার সুস্বাদু খাবারের স্বাদ নিতে আগ্রহী তাদের জন্য ফুড ফেস্টিভ্যাল উন্মুক্ত। যেকেউ চাইলে ০১৮৪৪০১৬০১৬ এ মুঠোফোন নাম্বারে যোগাযোগ করে বুকিং দিয়ে জমকালো বুফেতে অংশ নিতে পারেন।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।