১৭ জুন, ২০২৪ | ৩ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১০ জিলহজ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  উখিয়া-টেকনাফের ৫ শতাধিক তরুন-তরুণীকে কারিগরি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘সুশীলন’   ●  খাদ্যে ভেজাল রোধে সামাজিক আন্দোলন দরকার : খাদ্যমন্ত্রী   ●  ইজিবাইকের ছাদে তুলে ৮ বছরের শিশু নির্যাতন ভিডিও ভাইরাল: তিন অভিযুক্ত গ্রেপ্তার   ●  ভবিষ্যতে প্রেস কাউন্সিলের সার্টিফিকেট ছাড়া সাংবাদিকতা করা যাবে না   ●  একমাসেও অধরা ঘাতক চক্র, চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে পরিবারে হতাশ   ●  সমুদ্রকেই ঘিরে কক্সবাজারের অর্থনীতি   ●  সামাজিক কাজে বিশেষ অবদানের জন্য হাসিঘর ফাউন্ডেশনকে সম্মাননা স্মারক প্রদান   ●  ডা.আবু বকর ছিদ্দিক এর চতুর্থ  মৃত্যুবার্ষিকী শনিবার    ●  কক্সবাজারে আইএসইসি প্রকল্পের অধীনে যুবক-যুবতীদের প্রশিক্ষণ ও সনদ বিতরণ    ●  কক্সবাজারে শ্রেষ্ঠ সার্কেল রাসেল, ওসি মুহাম্মদ ওসমান গনি 

কক্সবাজারে দুই ভারতীয় নারী পাচারকারী আটক

arrest-md20150630203027

ভারতীয় ২ নারী পাচাকারীকে আটক করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশান ব্যাটালিয়ানের সদস্যরা। রোববার বিকাল ৪টার দিকে কক্সবাজার শহরতলীয় লিংকরোড এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এসময় তাদের কবল থেকে পাচার হতে যাওয়া ২ নারীকে উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃতরা হলেন, ভারতের দিল্লি জেলার শক্কপুর থানার লক্ষèীনগর এলাকার অতুল হালদারের মেয়ে পূজা হালদার (১৮) ও ভারতের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার হরিরামপুর থানার পুন্ড্রলি এলাকার অনিল মোহন্তের মেয়ে লক্ষèী মোহান্ত (৬০)।
রোববার সন্ধ্যা ৬টায় র‌্যাব-৭ এর কক্সবাজার ক্যাম্পে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে ক্যাম্পের কোম্পানি অফিসার আহমেদ হোসেন মহিউদ্দীন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ভারতীয় ২ নারী পাচারকারীকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কবল থেকে উখিয়ার কুতুপালং এলাকার শামসুল আলমের স্ত্রী রাশেদা (২৮) ও একই এলাকার এজাহার হোসেনের স্ত্রী জেসমিনকে (২২) উদ্ধার করা হয়।
কোম্পানি অফিসার আহমেদ হোসেন মহিউদ্দীন জানান, হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশ প্রবেশ করে ২ পাচারকারী। এরপর তারা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে তারা সোজা টেকনাফে চলে আসে। সেখানে তারা তিন দিন অবস্থান করে। এরপর দালালের মাধ্যমে উখিয়া থেকে ২ নারীকে নিয়ে তারা ভারতের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।
উদ্ধার হওয়া ২ নারী জানান, ভারতের দিল্লিতে একটি ফ্যাক্টরিতে মাসে ৪০ হাজার টাকা বেতনের চাকরি দেয়ার কথা বলে তাদেরকে ভারতে নিয়ে যাচ্ছিল পাচারকারীরা। কুতুপালং ক্যাম্পের রাজ্জাক নামে এক ব্যক্তি তাদেরকে পাচারকারীদের হাতে তুলে দেন।
আটককৃতদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মানবপাচার ও অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে দুটি পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাদেরকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।