২০ এপ্রিল, ২০২৪ | ৭ বৈশাখ, ১৪৩১ | ১০ শাওয়াল, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  কক্সবাজার পৌরসভায় প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তারিকুলের বরণ ও উপ-সহকারি প্রকৌশলী মনতোষের বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত   ●  জলকেলি উৎসবের বিভিন্ন প্যান্ডেল পরিদর্শনে মেয়র মাহাবুব   ●  উখিয়া সার্কেল অফিস পরিদর্শন করলেন ডিআইজি নুরেআলম মিনা   ●  ‘বনকর্মীদের শোকের মাঝেও স্বস্তি, হত্যার ‘পরিকল্পনাকারি কামালসহ গ্রেপ্তার আরও ২   ●  উখিয়া নাগরিক পরিষদ এর ঈদ পুনর্মিলনী ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত   ●  আদালতে ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার দায়স্বীকার সেই ডাম্পার চালক বাপ্পির   ●  ‘অভিযানে ক্ষুব্ধ, ফরেস্টার সাজ্জাদকে পূর্বপরিকল্পনায় হত্যা করা হয়’   ●  ফাঁসিয়াখালীতে পৃথক অভিযানে জবর দখল উচ্ছেদ, বালিবাহী ডাম্পার জব্দ   ●  অসহায়দের পাশে ‘রাবেয়া আলী ফাউন্ডেশন’   ●  ফরেস্টার সাজ্জাদ হত্যার মূল ঘাতক সেই বাপ্পী পুলিশের জালে

কক্সবাজারে দখলের ভয়ে নির্মিত টিএম বার্মিজ মার্কেট বন্ধ; অর্ধশত কোটি টাকা ক্ষয়ক্ষতি

নিজস্ব প্রতিনিধি:
কক্সবাজার শহরের কলাতলীতে নির্মিত টিএম বার্মিজ মার্কেট দখল করতে বারবার হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। দুর্বৃত্তদের হামলার ভয়ে গেল কয়েকমাস ধরে মার্কেটটি খুলতে না পেরে ব্যবসায়ীদের অর্ধশত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন মার্কেট মালিকরা। মার্কেট মালিকদের অভিযোগ পৌরসভার দক্ষিণ বাহারছড়ার এলাকার চিহ্নিত ভূমিদস্যু, সরকারি খাস জমি দখলবাজ আব্দুল্লাহ এবং সৈয়দ মোহাম্মদ মুসা শতশত নারী ব্যবহার করে তাদের নির্মিত মার্কেট দখল করতে যায়। থানা পুলিশের তৎপরতার কারণে তারা মার্কেটটি রক্ষা করতে পেরেছেন তারা। বর্তমানে দখলবাজ চক্রের অব্যাহত হুমকিতে ব্যবসায়ী ও মার্কেট মালিক নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন বলে দাবি করেছেন। মার্কেট মালিক আব্দু ছবুর জানান, বিএস ১৭৫১ খতিয়ানে ওয়ারিশ সূত্রে পাওয়া জমিতে অনেক বছর ধরে একটি মার্কেট নির্মাণ করে ব্যবসা করছেন তারা।
সম্প্রতি এটিকে পর্যটন শিল্প বন্ধব করতে সংস্কার করে নতুন করে একটি ‘টিএম বার্মিজ মার্কেট’ নির্মাণ করা হয়। এর পরেই মার্কেটটি দখলে নিতে কয়েক দফা হামলার চেষ্টা চালিয়েছে  আব্দুল্লাহ ও মুসা গ্যং।
মার্কেট মালিকদের দেয়া তথ্য মতে, জনৈক আব্দুল করিম স্বত্ব দাবি করে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটে একটি এমআর মামলা দায়ের করেন (যার নং-১৭৮৩/২২)। মামলাটি সরজমিনে তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দেন সহকারী কমিশনারের পক্ষে তহসিলদার। প্রতিবেদন পাওয়ার পর বিজ্ঞ আদালত মামলাটি খরিজ করে দেন।
হোসনে আরা নামে আরেক মার্কেট মালিক জানান, দখলবাজ চক্রের হাত থেকে রক্ষা পেতে আমরা একটি এমআর মামলা দায়ের করি (যার নং-১৮৫৫/২২)। মামলাটিও তদন্ত প্রতিবেদন দিলে আদালত মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ ও সৈয়দ মোহাম্মদ মুসা গ্যাংদের বিরুদ্ধে বারিত আদেশ প্রদান করেন আদালত। এবং মার্কেটে ব্যবসায়ীরা যেন নিরাপদে ব্যবসা করতে পারে সেজন্য সেজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে কক্সবাজার মডেল থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দেন।
আইনী লড়াইয়ে চূড়ান্তভাবে হেরে যাওয়ার পর আরো বেশি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে ভূমিদস্যু আব্দুল্লাহ গ্যং মার্কেট দখলের জোরচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।  তিনি বলেন, জায়গা জমির বিষয়টি দলিলে প্রমাণ হয়। কিন্তু তারা জোর করে দখলে নিতে চাই। কারন দখলবাজি তাদের নেশা এবং পেশা। বর্তমানে তারা হিলডাউন সার্কিট হাউস এবং কলাতলী আনবিক শক্তিকমিশন এলাকায় সরকারি জমি অবৈধভাবে দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণ করে রেখেছে ভূমিদস্যু আব্দুল্লাহ ও মুসা গ্যং। দুর্বৃত্তদের অব্যাহত হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলেও দাবি করেন তিনি। ব্যবসায়ী জেবর মল্লুক বলেন, মার্কেট খুলতে না পেরে আমাদের অর্ধশত কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। নষ্ট হয়ে অনেক পণ্যও। আমরা আশা করছি থানা প্রশাসন আদালতের আদেশ বাস্তবায়ন করবে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।