২২ জুন, ২০২৪ | ৮ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৫ জিলহজ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ব্যাচ ২০১৯-এর ঈদ পূণর্মিলন অনুষ্ঠিত হয়েছে   ●  পাহাড় ধ্বসঃ ৮ রোহিঙ্গাসহ নিহত ১০   ●  উখিয়ার ক্যাম্পে পৃথক পাহাড় ধ্বসে ৭ রোহিঙ্গা সহ নিহত ৯   ●  রামুতে ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা   ●  উখিয়া-টেকনাফের ৫ শতাধিক তরুন-তরুণীকে কারিগরি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘সুশীলন’   ●  খাদ্যে ভেজাল রোধে সামাজিক আন্দোলন দরকার : খাদ্যমন্ত্রী   ●  ইজিবাইকের ছাদে তুলে ৮ বছরের শিশু নির্যাতন ভিডিও ভাইরাল: তিন অভিযুক্ত গ্রেপ্তার   ●  ভবিষ্যতে প্রেস কাউন্সিলের সার্টিফিকেট ছাড়া সাংবাদিকতা করা যাবে না   ●  একমাসেও অধরা ঘাতক চক্র, চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে পরিবারে হতাশ   ●  সমুদ্রকেই ঘিরে কক্সবাজারের অর্থনীতি

‘এমপি জাফর ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে নেমেছে আওয়ামী লীগের জনবিচ্ছিন্ন কিছু নেতা’

নিজস্ব প্রতিবেদক:

আগামী সংসদ নির্বাচন ঘনিয়ে আসায় কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলমকে নিয়ে ব্যাপক অপপ্রচারে নেমেছে দলের ভেতর ঘাপটি মেরে থাকা জনবিচ্ছিন্ন কিছু নেতা। তাদের এই অপপ্রচারের ভাষা বিএনপি-জামায়াতিদেরও ছাড়িয়ে গেছে। চকরিয়াসহ জেলাজুড়ে নতুন করে ফের নতুন করে মাথাচাড়া দিয়ে উঠার চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে আওয়ামী লীগের ওই জাফর বিরোধীরা।
তৃণমূল নেতাদের অভিযোগ-আওয়ামী লীগের ভেতর ঘাপটি মেরে থাকা বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী সালাহউদ্দিনের এজেন্ট বা প্রেতাত্মারাই শিলং কানেকশনের মাধ্যমে সংসদ নির্বাচন ঘনিয়ে আসায় নতুন করে এই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। এমপি জাফরের বিরোধীরা কিছু টাকা বিনিয়োগের মাধ্যমে নতুন করে কিছু পত্রিকাসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচারে নেমেছে। ইতোমধ্যে তারা এক স্থানে বিশেষ মতবিনিময় সভাও করেছে।
এসব অপপ্রচারে এমপি জাফর আলমকে জড়িয়ে ক্ষান্ত হয়নি তারা। এমপির স্ত্রী, একমাত্র পুত্র ও শিশুসহ দুই কন্যা সন্তানকেও ছাড় দিচ্ছে না শিলং কানেকশন থাকা আওয়ামী লীগের ওই জাফর বিরোধীরা।
এসব অপপ্রচারের পেছনে উদ্দেশ্যও রয়েছে। তা হলো-আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্যের ওপর ভর করে প্রকাশিত এসব উদ্ভট নিউজগুলো ব্যবহার করে দলীয় মনোনয়ন থেকে বঞ্চিত করা। তবে সংবাদগুলো যে একেবারেই উদ্ভট এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত তা সর্বমহল ওয়াকিবহাল রয়েছেন।
মঙ্গলবার (২০ জুন) বিকেলে চকরিয়া পৌরশহরের থানা রাস্তার মাথার সিস্টেম কমপ্লেক্সের অভিজাত রেস্টুরেন্ট এরিস্টো ডাইনের হলরুমে এমপি জাফর আলমকে নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে চকরিয়া, পেকুয়া, মাতামুহুরী, পৌরসভা আওয়ামী লীগের যৌথ সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত বক্তব্য দেন সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।
সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বাবলা। এতে বক্তব্য দেন কক্সবাজার-১ আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম এমএ, মাতামুহুরী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চকরিয়া উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মকছুদুল হক চুট্টু, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রস্তাবিত কমিটির জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ছৈয়দ আলম কমিশনার, সাধারণ সম্পাদক আবু মুছা, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. সাইফুদ্দিন খালেদ, সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু ও সাধারণ সম্পাদক লায়ন আলমগীর চৌধুরী, বমুবিলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও শহীদ আবদুল হামিদের ছোটভাই মো. মনজুরুল কাদের।
চেয়ারম্যানদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন যথাক্রমে বদরখালী ইউপি চেয়ারম্যান নূরে হোছাইন আরিফ, ঢেমুশিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. মঈনউদ্দিন চৌধুরী, কোনাখালী ইউপি চেয়ারম্যান দিদারুল হক সিকদার, মগনামা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ইউনুস চৌধুরী, লক্ষ্যারচর ইউপি চেয়ারম্যান খম আওরঙ্গজেব বুলেট, বরইতলী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ছালেকুজ্জামান, ডুলাহাজারা ইউপি চেয়ারম্যান হাসানুল ইসলাম আদর, ফাঁসিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন হেলালী, হারবাং ইউপি চেয়ারম্যান মেহরাজ উদ্দিন মিরাজ, কৈয়ারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মক্কী ইকবাল হোসেন, চিরিঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান জামাল হোসেন চৌধুরী, সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যান নবী হোছাইন চৌধুরী, পূর্ব বড় ভেওলা ইউপি চেয়ারম্যান ফারহানা আফরিন মুন্না, শীলখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ তিন উপজেলার সিংহভাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য, তিন উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, যুবলীগ, কৃষকলীগ, শ্রমিকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের পদস্থ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এমপি জাফর আলমকে নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে চকরিয়া, পেকুয়া, মাতামুহুরী, পৌরসভা আওয়ামী লীগের যৌথ বিবৃতি:

জাফর আলম এমপি ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের নিন্দা ও তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ, মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগ ও চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামী লীগ যৌথ বিবৃতি প্রদান করে। ষড়যন্ত্রকারীদের শিলং কানেকশন খতিয়ে দেখা উচিত বলেও নেতৃবৃন্দ মনে করেন।
যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়: চকরিয়া-পেকুয়ায় দীর্ঘ ৪৩ বছর পর নৌকা প্রতীক নিয়ে জনাব জাফর আলম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হোন। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বিএনপির দূর্গ তকমা পাওয়া চকরিয়া-পেকুয়ার রাজপথ এখন ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত। তাঁর নেতৃত্বে জনসভাগুলো জনসমুদ্রে পরিণত হচ্ছে। সর্বোপরি কক্সবাজারে এই আসনটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার শক্ত ঘাঁটি হিসেবে আলোচিত হচ্ছে।
◉ জনাব জাফর আলম এমপি যখন তাঁর দৃঢ়  ও যোগ্য নেতৃত্বে এই জনপদকে আওয়ামী দূর্গে পরিণত করেছেন ঠিক তখনই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আবারো গুটিকয়েক কর্মীবিচ্ছিন্ন নেতা দলে বিভক্তি সৃষ্টির পায়তারা করছে। তাদের অব্যাহত ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে জাফর আলম এমপি ও তাঁর পরিবার সম্পর্কে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দিয়ে কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে পেইড নিউজ করিয়ে মিডিয়া ট্রায়ালের মাধ্যমে তাঁর গগনচুম্বী জনপ্রিয়তা ও দলে সুসংহত অবস্থানকে প্রশ্নবিদ্ধ করার হীন প্রচেষ্টা চলছে।
◉ আমরা মনে করি এসব অপচেষ্টা ও অপপ্রচারে সরকার বিরোধী স্থানীয় শক্তির যোগসূত্র থাকতে পারে। জনবিচ্ছিন্ন কোন্দল সৃষ্টিকারী নেতাদের সাথে শিলং কানেকশন আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা উচিত।
◉ আমরা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলতে চাই কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে স্বাধীনতার স্বপরে শক্তি তথা নৌকা মার্কার জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে জাফর আলম এমপি’র কোন বিকল্প নাই। আমরা তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা-ভিত্তিহীন বক্তব্য, অভিযোগ ও প্রতিবেদনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন ও আস্থা আছে।”

চকরিয়া উপজেলা ইউপি চেয়ারম্যান এসোসিয়েশনের যৌথ বিবৃতি : জাফর আলম এমপি ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের নিন্দা ও তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে বাংলাদেশ ইউপি চেয়ারম্যান এসোসিয়েশন চকরিয়া উপজেলা শাখা যৌথ বিবৃতি প্রদান করে। যৌথ বিবৃতিতে আরো স্বার করেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মকছুদুল হক ও জেসমিন হক জেসি।
যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়: “◉ চকরিয়া-পেকুয়ায় দীর্ঘ ৪৩ বছর পর নৌকা প্রতীক নিয়ে জনাব জাফর আলম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হোন। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় বিএনপির দূর্গ তকমা পাওয়া চকরিয়া-পেকুয়ার রাজপথ এখন ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে মুখরিত। তাঁর নেতৃত্বে জনসভাগুলো জনসমুদ্রে পরিণত হচ্ছে। সর্বোপরি কক্সবাজারে এই আসনটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার শক্ত ঘাঁটি হিসেবে আলোচিত হচ্ছে।
◉ জনাব জাফর আলম এমপি যখন তাঁর দৃঢ ও যোগ্য নেতৃত্বে এই জনপদকে আওয়ামী দূর্গে পরিণত করেছেন ঠিক তখনই আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আবারো গুটিকয়েক কর্মীবিচ্ছিন্ন নেতা দলে বিভক্তি সৃষ্টির পায়তারা করছে। তাদের অব্যাহত ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে জাফর আলম এমপি ও তাঁর পরিবার সম্পর্কে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্য দিয়ে কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে পেইড নিউজ করিয়ে মিডিয়া ট্রায়ালের মাধ্যমে তাঁর গগনচুম্বী জনপ্রিয়তা ও দলে সুসংহত অবস্থানকে প্রশ্নবিদ্ধ করার হীন প্রচেষ্টা চলছে।
◉ আমরা মনে করি এসব অপচেষ্টা ও অপপ্রচারে সরকার বিরোধী স্থানীয় শক্তির যোগসূত্র থাকতে পারে। জনবিচ্ছিন্ন কোন্দল সৃষ্টিকারী নেতাদের সাথে শিলং কানেকশন আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা উচিত।
◉ আমরা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় বলতে চাই কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনে স্বাধীনতার স্বপরে শক্তি তথা নৌকা মার্কার জয়ের ধারা অব্যাহত রাখতে জাফর আলম এমপি’র কোন বিকল্প নাই। আমরা তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যা-ভিত্তিহীন বক্তব্য, অভিযোগ ও প্রতিবেদনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রতি আমাদের পূর্ণ সমর্থন ও আস্থা আছে।”
বিবৃতিতে স্বার করেন: চিরিঙ্গা, কৈয়ারবিল , ডুলাহাজারা, পূর্ব বড় ভেওলা, বমুবিলছড়ি, হারবাং, পশ্চিম বড় ভেওলা, সাহারবিল, ঢেমুশিয়া, বরইতলী, বদরখালী, ল্যারচর, কোনাখালী ও ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের সম্মানীত চেয়ারম্যানবৃন্দ। বিবৃতিতে আরো স্বার করেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যানবৃন্দ।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।