৪ জুন, ২০২৩ | ২১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ | ১৪ জিলকদ, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  জাতীয় শ্রমিক লীগ চকরিয়ার ফাসিয়াখালী ইউনিয়ন শাখার কর্মী সভায় এমপি জাফর আলম   ●  বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রব্বানের দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকীর আলোচনা সভায় এমপি জাফর আলম   ●  স্কাউটসসের নিয়ন্ত্রণ জামায়াত-শিবিরের হাতে যাচ্ছে কিনা কঠোর নজরদারি করতে হবে- এমপি জাফর   ●  সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় আলেম-ওলেমাদের এগিয়ে আসতে হবে-এমপি জাফর   ●  ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে বর্তমান উদ্যোগ ভূমিকা রাখবে   ●  আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থীর সমর্থককে জরিমানা ও মুচলেকা আদায়   ●  পুকুরে ডুবে প্রাণ গেল শিশু তৌকির   ●  রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যুবককে কুপিয়ে হত্যা   ●  শাহপুরী হাইওয়ে পুলিশের অভিযানে ইয়াবাসহ একজন গ্রেফতার   ●  কক্সবাজারে রেডিও সৈকত এর ১ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

উখিয়া বনবিটের ৭টি গর্জন গাছ লুট

SAMSUNG CAMERA PICTURES
উখিয়া বন রেঞ্জের অস্তিত্বহীন উয়ালা বনবিটের ৭টি গর্জন মাদার ট্রি রাতের আধাঁরে লুট করে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। উক্ত বনবিট কার্যালয়টি জবর দখল হয়ে অস্তিত্বহীন অবস্থায় একটি জরাঝির্ণ নামমাত্র কুড়ে ঘর থাকলেও প্রায় অর্ধ শতাধিক গর্জন মাদার ট্রি সংরক্ষণ করা হয়েছিল। গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার দু’রাতে পর পর ৭টি মাদার ট্রি চুরি হয়ে যাওয়ার ঘটনা নিয়ে গ্রামবাসীর মধ্যে উদ্বেগ সৃষ্টি হলেও সংশ্লিষ্ট বিট কর্মকর্তার কোন মাথা ব্যাথ্যা নেই। জানতে চাওয়া হলে ওই বনবিট কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান মিয়া জানান, দুর্বৃত্তরা ৭টি গাছ চুরি করে নিয়ে গেছে। তবে এলাকার প্রত্যক্ষদর্শী নবী হোছন ড্রাইভার ও স্থানীয় প্রাথমিক শিক্ষক মাস্টার জানে আলম বলেন, আগের দিন সন্ধ্যায় বিট কর্মকর্তা ২/৩জন কাঠ চোরের সাথে কথা বলতে দেখা গেছে। পরদিন সকালে গিয়ে দেখা যায়, ৭টি কাটা গাছের গোড়ালি। সহকারি বন সংরক্ষক রেজাউল করিম চৌধুরী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ৭টি গাছ লুটের সত্যতা পেয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। উল্লেখ্য থাকে যে, প্রায় সাড়ে ৩ হাজার একর বনভূমি নিয়ে এ উয়ালা বিট কার্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৫২ সনে। বন সম্পদ লুটপাট ও বনভূমি জবর দখলের ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকার ফলে বর্তমানে বিট কর্মকর্তার কার্যালয়টি অরক্ষিত হয়ে পড়েছে। স্থানীয়রা বলছেন, অদূর ভবিষ্যতে এ বনবিট অফিসটিও জবর দখল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।