২২ জুন, ২০২৪ | ৮ আষাঢ়, ১৪৩১ | ১৫ জিলহজ, ১৪৪৫


শিরোনাম
  ●  সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ব্যাচ ২০১৯-এর ঈদ পূণর্মিলন অনুষ্ঠিত হয়েছে   ●  পাহাড় ধ্বসঃ ৮ রোহিঙ্গাসহ নিহত ১০   ●  উখিয়ার ক্যাম্পে পৃথক পাহাড় ধ্বসে ৭ রোহিঙ্গা সহ নিহত ৯   ●  রামুতে ঘুমন্ত স্বামী-স্ত্রীকে জবাই করে হত্যা   ●  উখিয়া-টেকনাফের ৫ শতাধিক তরুন-তরুণীকে কারিগরি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে ‘সুশীলন’   ●  খাদ্যে ভেজাল রোধে সামাজিক আন্দোলন দরকার : খাদ্যমন্ত্রী   ●  ইজিবাইকের ছাদে তুলে ৮ বছরের শিশু নির্যাতন ভিডিও ভাইরাল: তিন অভিযুক্ত গ্রেপ্তার   ●  ভবিষ্যতে প্রেস কাউন্সিলের সার্টিফিকেট ছাড়া সাংবাদিকতা করা যাবে না   ●  একমাসেও অধরা ঘাতক চক্র, চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে পরিবারে হতাশ   ●  সমুদ্রকেই ঘিরে কক্সবাজারের অর্থনীতি

উখিয়া আ.লীগের সম্মেলনে উপস্থিতি দেখে হতাশ হানিফ, ক্ষোভ ঝাড়লেন নেতাদের প্রতি

বিশেষ প্রতিবেদক:
কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিলে গিয়ে হতাশ হলেন দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ এমপি। উপস্থিতি দেখে নেতাদের ওপর ক্ষোভ ঝেড়েছেন।
তিনি বলেন, আজকে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। সম্মেলন মানে হচ্ছে দলের নেতা কর্মীদের একটা মিলনমেলা। উচ্ছ্বাস-আবেগ কাজ করে। উৎসব কাজ করে। সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব তৈরি হয়। এই সম্মেলন যদি আওয়ামী লীগের হয়, তাহলে উপস্থিতি বেশি হওয়ার কথা।
আমি একটা কথা আজকে না বলে পারলাম না। আপনারা মনে কষ্ট পাবেন। তারপরও বলতে হচ্ছে। আশির দশকের দিকে উপজেলা কাউন্সিল ঘিরে এরকম চেহারা দেখা যেত। গত ২০ বছরের মধ্যে কোন উপজেলাতে এরকম ছোট্ট পরিসরে কাউন্সিল এবং এত কম লোকের উপস্থিতি আমি দেখিনি।
বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) দুপুরে উখিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা মাহবুব উল আলম হানিফ।
সম্মেলনে উপস্থিতির উদ্দেশ্যে আক্ষেপের সঙ্গে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ গণমানুষের সংগঠন। এরকম একটি সম্মেলনে হাজারো মানুষের উচ্ছ্বাস থাকে। কিন্তু উপস্থিতি আমাকে হতাশ করেছে। আমার দেখা ২০ বছরে সবচেয়ে ছোট সম্মেলন হচ্ছে। এটা কেন হচ্ছে, আপনারা ভালো বলতে পারবেন। সাংগঠনিক দুর্বলতা, নাকি সাধারণ মানুষকে আসেনি। কোনটা?
হানিফ বলেছেন, বিএনপি জামায়াত লন্ডনে বসে সন্ত্রাসী তারেক জিয়ার নির্দেশে দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করার চেষ্টা চালাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নকে অস্বীকার করে দেশে গুজব ছড়াচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আছে বলে দেশের মানুষ গণতন্ত্রের সুফল পাচ্ছে।
তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষক নয়, বিএনপি মিথ্যা আশ্রয় নিয়ে বারবার মানুষকে বিভ্রান্তি করার চেষ্টা করছে।
তিনি আরো বলেন, গোয়েন্দা সংস্থার কাছে খবর এসেছে বিএনপি দেশে আবারও নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডের জন্য পরিকল্পনা করছে। লন্ডন থেকে পলাতক সন্ত্রাসী তারেক রহমান নাশকতার নির্দেশ দিয়েছে। বিএনপি দেশে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করার পাঁয়তারা করছে। আমাদের দলের সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। সরকার আন্দোলনের নামে দেশের রাজপথে অস্থির করার সুযোগ দেবে না।
আওয়ামী লীগের এ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের রায়ের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আগামী নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু হবে। ২০২৩ সালের ডিসেম্বর অথবা ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আমরা চাই সেই নির্বাচনে সব দল অংশ নেবে। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে আপনাদের জনপ্রিয়তা যাচাই করার মানসিক প্রস্তুতি নিন।
তিনি বলেন, বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার কথা বলছে তার কারণ একটাই। তাদের নেত্রী খালেদা জিয়া এতিমের টাকা আত্মসাৎ মামলায় দণ্ডিত হয়েছেন।  নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সুযোগ নেই। তারেক রহমান হাওয়া ভবন বানিয়ে লুটপাট করেছে। দণ্ডিত, পলাতক আসামি তারেক রহমানও নির্বাচনে অংশগ্রহণের সুযোগ নেই। তাই তাদের ফন্দিফিকির একটাই অন্য কোনো সরকার এসে সুযোগ দলে নির্বাচনে অংশ নেবে।
হানিফ বলেন, বিএনপির সিনিয়র নেতারা কথায় কথায় মিথ্যাচার করে জাতিকে বিভ্রান্ত করছেন। মহামারি করোনার পর রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা পৃথিবীতে খাদ্যের সংকট চলছে। সবকিছুর দাম বাড়ছে। ঠিক এসময়েও বিএনপির সিনিয়র নেতারা মিথ্যাচার করে জাতিকে বিভ্রান্ত করছেন।
তিনি বলেন, বিএনপি নেতারা বলেছেন আওয়ামী লীগ সরকারের সময় নাকি দেশের রিজার্ভের পরিমাণ সবচেয়ে কম। অথচ বিএনপি ক্ষমতায় থাকার সময় দেশে রিজার্ভ ছিল ৫ বিলিয়ন ডলার। আর এখন এতো সংকটের মধ্যেও দেশের রিজার্ভ ৪০ বিলিয়ন ডলার। বিএনপি নেতারা এই নির্লজ্জ মিথ্যাচারের আগে আয়নায় তাদের নিজের চেহারা দেখা প্রয়োজন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উখিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, কক্সবাজার-২ (মহেশখালী-কুতুবদিয়া) আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান, সহসভাপতি রেজাউল করিম, যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুল হক মুকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরী, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট রঞ্জিত দাস, শাহাআলম চৌধুরী রাজা এবং টেকনাফ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক এমপি আব্দুর রহমান বদি।
উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর পরিচালনায় সম্মেলনে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগসহ অঙ্গ ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সম্মেলন শেষে কাউন্সিলে জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি এবং রত্নাপালং ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল হুদা প্রত্যক্ষ ভোটে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। ৭ বছর পরে উখিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।