৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ২০ মাঘ, ১৪২৯ | ১১ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

ঈদগড় ঘিলাতলীতে রোহিঙ্গাদের বসবাস দিন দিন বাড়ছে

barmaya
কক্সবাজার রামুর ঈদগড় ঘিলাতলী এলাকায় রোহিঙ্গাদের বসবাস দিন দিন ব্যাপক হারে বাড়ছে। প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ, পুরো ঈদগড় এলাকায় রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ ঘটলেও ঘিলাতলী এলাকায় আশ্রয় নিচ্ছে বেশী। স্থানীয়দের সহযোগিতায় রিজার্ভ বনভূমি দখল পূর্বক বসতি গড়ে তুলছে রোহিঙ্গারা। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নেই কোন মাথা ব্যাথা। ফলে একদিকে বাড়ছে ঈদগড়ের জনসংখ্যা অপরদিকে কমছে বনভূমি। শুধু তা নয় এসব রোহিঙ্গারা উল্লেখিত এলাকায় বসবাস পূর্বক এলাকার পরিবেশকে অশান্ত করে তুলছে। চুরি, ডাকাতি, অপহরণ থেকে শুরু করে নানা দাঙ্গা-হাঙ্গামায় অংশ নিচ্ছে এসব রোহিঙ্গারা। সরজমিন পরিদর্শনে দেখা যায়, এসব রোহিঙ্গাদের জন্ম নিয়ন্ত্রনেও নেই কোন প্রকার নিয়ম নীতি। দিনের পর দিন এসব রোহিঙ্গারা মায়ানমার থেকে এসে উল্লেখিত এলাকায় আশ্রয় নেওয়ায় এলাকার পরিবেশ ভারী হয়ে উঠছে। বর্তমানে স্থানীয় জনসাধারণ আতংকে রয়েছে। কখন না কখন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে যায়। সম্প্রতি অনুপ্রবেশ ব্যাপক হারে বাড়লেও পুলিশ প্রশাসনের নেই কোন অভিযান। কোন অভিযান না থাকায় এসব রোহিঙ্গারা বেপরোয়া হয়ে উঠছে। এলাকার শ্রম বাজার থেকে শুরু করে সর্বস্তরে রয়েছে বর্তমানে রোহিঙ্গাদের অবাধ বিচরণ। জানা যায়, এসব রোহিঙ্গারা কৌশলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরকে ম্যানেজ করে পর্যায়ক্রমে ভোটার তালিকায় অর্ন্তভুক্ত হয়ে যায়। অপরদিকে স্থানীয় জনসাধারণের জান মালের উপর নানা অঘটন ঘটায়। ইতিপূর্বে রোহিঙ্গারা এলাকার অনেককেই হত্যা করে। এর পরও দিন দিন ঘিলাতলী এলাকায় রোহিঙ্গাদের বসবাস বাড়তে থাকায় স্থানীয় জনসাধারণ আইনশৃংখলা বাহিনীর তথা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। উল্লেখ্য, ঘিলাতলী এলাকা ঈদগড়ের সীমানার একেবারে উত্তরে হওয়ায় রোহিঙ্গারা বসবাসের জন্য নিরাপদ হয়ে উঠছে। ঈদগড় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সদস্য মোজাফ্ফর আহমদ জানান, ঈদগড়ের ঘিলাতলীতে দীর্ঘদিন যাবত রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ বাড়ছে এবং পাশাপাশি স্থানীয়দের সহযোগিতায় বসবাস গড়ে তুলছে। এ ব্যাপারে ঈদগড়ে দায়িত্বরত রামু থানা এএসআই এস এম রাশেদুল ইসলাম জানান, এসব রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে শিগ্রই অভিযান পরিচালিত হবে।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।