২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ | ১৯ মাঘ, ১৪২৯ | ১০ রজব, ১৪৪৪


শিরোনাম
  ●  প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমানোন্নয়নে কক্সবাজার পৌর এলাকায় চলছে দরিদ্রবান্ধব নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কাজ   ●  পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানে নিষিদ্ধ পলিথিন, হাইড্রোলিক হর্ণ জব্দ, জরিমানা   ●  বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্ব শ্রেষ্ঠ জাতীয়তাবাদের নেতা   ●  হাতের কব্জির রগ কেটে মোবাইল-ল্যাপটপ ছিনতাই   ●  কক্সবাজারে ইয়াবার মামলায় ৮ রোহিঙ্গার যাবজ্জীবন   ●  লোহাগাড়ায় পুলিশ কর্মকর্তার পরিবারকে ‘পেট্রোলের আগুনে’ পুড়িয়ে মারার চেষ্টা!   ●  চকরিয়ার সাহারবিলে সড়ক উন্নয়ন কাজ পরিদর্শন করলেন এমপি জাফর আলম   ●  রাইজিংবিডির বর্ষাসেরা প্রতিবেদক তারেককে আরইউসির শুভেচ্ছা   ●  স্ট্রীটফুড ও ড্রাই ফিস প্রশিক্ষাণার্থীদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ ও সাপোর্ট প্রদান   ●  রামুতে দুই শতাধিক মানুষ বিনামূল্যে পেল স্বাস্থ্যসেবা ও ওষুধ

ঈদগাঁওতে লাখ টাকায় আকাশি খুঁটিতে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগের আবেদন!

shomoy
কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে লাখ টাকায় অবৈধ খুঁটিতে বিদ্যুৎ সংযোগের আবেদনের গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। এ সংবাদে এলাকায় চলছে তোলপাড়। নেপথ্যে বিদ্যুৎ কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সংশ্লিষ্টতার আশংকা করছে স্থানীয়রা। জানা যায়, বিগত এক বছর পূর্বে রাতারাতি পল্লী বিদ্যুতের একটি খুঁটি ঈদগাঁও ইউনিয়নের দক্ষিণ মাইজপাড়া মসজিদ সংলগ্ন কাঁদা পুকুর পাড়ে স্থাপন করে একটি অবৈধ খুঁটি। যা থেকে তৎসংলগ্ন মৃত আবুল ফয়েজের সৌদি প্রবাসী ছেলে ফয়েজুল আমিনের বাড়ীতে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে যায়। তখন লাখ টাকার বিনিময়ে এ খুঁটি কোন না কোন স্থান থেকে অবৈধভাবে সংগ্রহ করে রাতারাতি স্থাপনের সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে এতে জড়িতরা থমকে যায়। অভিযোগ উঠে জিহাদ নামে এক যুবকের মাধ্যমে ইলেকট্রিক মিকার আবদুল আজিজ, প্রকাশ ভেটেক এ খুঁটি স্থাপনে সহযোগিতা করে। দীর্ঘ এক বছর পর বিগত ২/৩ মাস পূর্বে অবৈধভাবে প্রবাসীর বাড়ীতে সংযোগ নিয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার শুরু করে এবং মিটারের জন্য ঈদগাঁও পল্লী বিদ্যুৎ এরিয়া অফিসে আবেদন করে বলে বিশ্বস্থ সূত্রে জানা যায়। এলাকাবাসী দীর্ঘসময় পর একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানায়, এ গর্হিত কাজ পল্লী বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, কর্মচারীদের যোগসাজস ছাড়া হতে পারে না। তাই তদন্ত পূর্বক এ অবৈধ খুঁটির উৎস, স্থাপনে জড়িত ও তাদের সহযোগিতাকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে সংশ্লিষ্ট বিভাগের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। উক্ত অভিযোগের বিষয়ে ঈদগাঁও পল্লী বিদ্যুৎ এরিয়া অফিসের এজিএম শফি উদ্দীনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান। অপরদিকে ইলেকট্রিক মিটার ভেটেকের সাথে যোগাযোগ করা হলে সে সহ কয়েকজন অনৈতিক মোটা অংকের চুক্তিতে অবৈধভাবে খুঁটিটি স্থাপনের কথা স্বীকার করলেও বর্তমানে বিদ্যুৎ ব্যবহার ও মিটারের আবেদনের ঘটনা অবগত নয় বলে জানান। তবে অবৈধ বিদ্যুৎ ব্যবহারকারীর বাড়ীর কোন সদস্যের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া না যাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।