২৩ জুলাই, ২০২৪ | ৮ শ্রাবণ, ১৪৩১ | ১৬ মহর্‌রম, ১৪৪৬


শিরোনাম
  ●  কলেজছাত্র মুরাদ হত্যা মামলার আসামি রহিম কারাগারে   ●  আন্দোলনের নামে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির প্রতিবাদে কক্সবাজার ছাত্রলীগের সমাবেশ   ●  স্বেচ্ছাসেবী কাজে বিশেষ অবদানের জন্য হাসিঘর ফাউন্ডেশনকে সম্মাননা প্রদান    ●  চতুর্থবারের মতো শ্রেষ্ঠ সার্জেন্ট নির্বাচিত হলেন রোবায়েত   ●  সেন্টমার্টিনে ২ বিজিপি সদস্যসহ ৩৩ রোহিঙ্গা বোঝাই ট্রলার   ●  উখিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার ২   ●  উখিয়ায় ৩ হাজার পরিবার পানিবন্দি; কাঁচা ঘরবাড়ি, গ্রামীণ সড়ক লন্ডভন্ড   ●  উখিয়ায় কৃষি বিভাগের প্রণোদনা পেলেন ১৮০০ কৃষক /কৃষাণী   ●  আরসার জোন ও কিলিংগ্রুপ কমান্ডার আটক ৩   ●  পটিয়া প্রেস ক্লাবের নতুন কমিটি গঠিত

ঈদগাঁওতে লাখ টাকায় আকাশি খুঁটিতে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগের আবেদন!

shomoy
কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে লাখ টাকায় অবৈধ খুঁটিতে বিদ্যুৎ সংযোগের আবেদনের গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। এ সংবাদে এলাকায় চলছে তোলপাড়। নেপথ্যে বিদ্যুৎ কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সংশ্লিষ্টতার আশংকা করছে স্থানীয়রা। জানা যায়, বিগত এক বছর পূর্বে রাতারাতি পল্লী বিদ্যুতের একটি খুঁটি ঈদগাঁও ইউনিয়নের দক্ষিণ মাইজপাড়া মসজিদ সংলগ্ন কাঁদা পুকুর পাড়ে স্থাপন করে একটি অবৈধ খুঁটি। যা থেকে তৎসংলগ্ন মৃত আবুল ফয়েজের সৌদি প্রবাসী ছেলে ফয়েজুল আমিনের বাড়ীতে বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে যায়। তখন লাখ টাকার বিনিময়ে এ খুঁটি কোন না কোন স্থান থেকে অবৈধভাবে সংগ্রহ করে রাতারাতি স্থাপনের সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে এতে জড়িতরা থমকে যায়। অভিযোগ উঠে জিহাদ নামে এক যুবকের মাধ্যমে ইলেকট্রিক মিকার আবদুল আজিজ, প্রকাশ ভেটেক এ খুঁটি স্থাপনে সহযোগিতা করে। দীর্ঘ এক বছর পর বিগত ২/৩ মাস পূর্বে অবৈধভাবে প্রবাসীর বাড়ীতে সংযোগ নিয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার শুরু করে এবং মিটারের জন্য ঈদগাঁও পল্লী বিদ্যুৎ এরিয়া অফিসে আবেদন করে বলে বিশ্বস্থ সূত্রে জানা যায়। এলাকাবাসী দীর্ঘসময় পর একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানায়, এ গর্হিত কাজ পল্লী বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, কর্মচারীদের যোগসাজস ছাড়া হতে পারে না। তাই তদন্ত পূর্বক এ অবৈধ খুঁটির উৎস, স্থাপনে জড়িত ও তাদের সহযোগিতাকারীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে সংশ্লিষ্ট বিভাগের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। উক্ত অভিযোগের বিষয়ে ঈদগাঁও পল্লী বিদ্যুৎ এরিয়া অফিসের এজিএম শফি উদ্দীনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান। অপরদিকে ইলেকট্রিক মিটার ভেটেকের সাথে যোগাযোগ করা হলে সে সহ কয়েকজন অনৈতিক মোটা অংকের চুক্তিতে অবৈধভাবে খুঁটিটি স্থাপনের কথা স্বীকার করলেও বর্তমানে বিদ্যুৎ ব্যবহার ও মিটারের আবেদনের ঘটনা অবগত নয় বলে জানান। তবে অবৈধ বিদ্যুৎ ব্যবহারকারীর বাড়ীর কোন সদস্যের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া না যাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।