১৯ অক্টোবর, ২০১৯ | ৪ কার্তিক, ১৪২৬ | ১৯ সফর, ১৪৪১


শিরোনাম
  ●  চট্টগ্রামের হকার্স মার্কেটে ভয়াবহ আগুন, নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ১৫টি ইউনিট   ●  চূড়ান্তভাবে বাংলাদেশে বন্ধ হলো জনপ্রিয় গেইমস পাবজি   ●  টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে দুই রোহিঙ্গা পাচারকারী নিহত, ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার   ●  লোহাগাড়ায় অস্ত্র,রামদা ও ৯রাউন্ড গুলিসহ যুবক গ্রেফতার   ●  টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে দুই মাদক কারবারি নিহত,আহত পুলিশ সুপারসহ ৪   ●  কক্সবাজারের মহেশখালীতে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ   ●  লোহাগাড়ায় মাদক ও সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামীসহ আটক ৩   ●  উখিয়া ফোর মার্ডার : রিপু ও উজ্জ্বল বড়ুয়ার ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর   ●  টেকনাফে পচে যাচ্ছে মিয়ানমারের পেঁয়াজ, কৃত্রিম সংকট তৈরির অভিযোগ   ●  উখিয়ায় চলমান উন্নয়ন কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন মন্ত্রী পরিষদ সচিব শফিউল আলম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ে এএসআই নজরুলের কিছু কথা

 

বাংলাদেশ পুলিশের এএসআই শেখ নজরুল ইসলাম

বাংলাদেশে তথ্য প্রযুক্তি ও ইন্টারনেট ব্যবহারে অগ্রযাত্রা খুব একটা বেশি দিন হয়নি। সভ্যতার ক্রমবিকাশের সাথে সাথে আমাদের দেশেও তথ্য প্রযুক্তির অগ্রসান ঘটেছে। ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম, ইমুসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম।

আসুন জেনে নিই- আমরা কিভাবে এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করছি??

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক। এই ফেসবুক আমরা কিভাবে ব্যবহার করছি??
কিছুদিন পরপর আমাদের দেশে কিছু নাটকীয় ঘটনা ঘটবে, কখনো কোন অপরাধী, কখনো দরবেশ বাবা, কখনো হুজুর পীর মুর্শিদ, কখনো সরকার দলীয়, কখনো বিরোধী দলীয়, আবার কখনো কখনো কোন পাগলের Tropic. তারা এক এক সময় এক এক ধরনের শ্লোগান দিবে, আর আমরা বসে বসে ঐ শ্লোগানের আলোচনা বা সমালোচনা ঝড় তুলবো….!! এটাই আমাদের বর্তমান ফেসবুক ব্যবহার বিধি। আমরা কখনো সত্য ঘটনাকে এই ফেসবুকের মাধ্যমে ধামাচাপা দিই, আবার কখনো কোন মিথ্যে বা গুজবকে প্রচার প্রচারণার মাধ্যমে আলোচনার শীর্ষে তুলে দিই। এটাই বর্তমানের ফেসবুক ব্যবহারের বাস্তব দৃশ্য।

আমরা এমন কিছু ঘটনা দেখি যা টেকনাফে ঘটনার জন্ম হয়, সেটা ফেসবুকের মাধ্যমে বিকলাঙ্গ হতে হতে তেতুলিয়া পৌঁছানোর আগে ঘটনার মৃত্যু হয়। হাহাহা। আমরা আজব ফেসবুক ব্যবহারকারি।

আমরা দাবি করি আমরা উচ্চ শিক্ষিত ও বিভিন্ন যোগ্যতার অধিকারী এবং ফেসবুক প্রোফাইলে নিজেদের যোগ্যতার শিরোনাম লেখতে লেখতে আকাশ সমান লম্বা করি।
বাস্তবে আমরা অশোভনীয় পোষ্ট, লাইক, কমেন্টস করতে সর্বময় ব্যস্ত থাকি। কখনো এমন অযাচিত পোষ্ট করি, যা রাষ্ট্র বিরোধী বা কোন সম্মানিত ব্যক্তির প্রতি চরম অসাধাচরন। আমরা কখনো মানুষের মৃত্যু, মারাত্মক দুর্ঘটনার বা দুঃখের কোন পোষ্টে লাভ রিয়েক্ট/হাহা রিয়েক্ট দিই। কখনো কখনো এমন সব অশোভনীয় কমেন্টস করি যা সত্যিকার অর্থে শিক্ষিত জাতি হিসেবে কলঙ্কজনক।

আমরা হয়তো কখনো চিন্তাও করি না আমাদের এফবি লিস্টে অসংখ্য গুরুজন, সন্মানিত ব্যক্তিসহ মা বাব, ভাই বোন আত্মীয় স্বজন রয়েছে। আপনার এহেন অশোভনীয় আচরণ তাদের কাছে আপনার নৈতিকতা ও আদর্শকে পদলিত করছে। আপনি যে আদর্শ ও নৈতিক শিক্ষা অর্জন করতে ব্যর্থ হয়েছেন, এটা তার নমুনারূপ মাত্র। আপনার উচ্চ শিক্ষা, হাই সোসাইটি, আধুনিকায়ন সবই ব্যর্থ। আপনি নিজেই একজন ব্যর্থ। আপনার এবং সমাজের সচল চক্ষুর আলোহীন মানুষের মধ্যে কোন পার্থক্য থাকলো না। কে কাকে শিখাবে? কে কার দারস্থ হবে?? দু’জনের মাঝে যে কোন পার্থক্য নেই। একজন মূল্যহীন সার্টিফিকেটধারী অন্ধ,, অন্যজন জ্ঞানের আলোহীন অন্ধ।

ফেসবুক মানুষের স্বাধীন যোগাযোগ মাধ্যম।

যৌক্তিক ও গঠনমূলকভাবে এবং শোভনীয় শব্দচয়নের মাধ্যমে যে কোন ঘটনার আলোচনা, সমালোচনা ও প্রতিবাদ করুন। কোন মানুষের অসদাচরণ, অপরাধ, সর্বজনীন ক্ষতিকর বিষয় ও উপকৃত বিষয়- ভাইরাল করে দিন। সারা পৃথিবীকে জানিয়ে দিন। প্রতিবাদের ঝড় তুলুন। ভাল কাজও ভাইরাল করুন। তা যেন গঠনমূলক হয়। তাতে আপনার ব্যক্তিত্ব, নৈতিকতা ও সুশীলতার পরিচয় যেন প্রকাশ পায়।

লেখকঃ

শেখ নজরুল ইসলাম,

এএসআই, বাংলাদেশ পুলিশ।

এই ওয়েব সাইটের কোন লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।